ঈদগড়ে ‘আল্লাহ’কে কটুক্তি ও গালিগালাজ : হিন্দু যুবক গ্রেপ্তার, জনতার মিছিল, থানায় মামলা

ঈদগড়ে ‘আল্লাহ’কে কটুক্তি ও গালিগালাজ : হিন্দু যুবক গ্রেপ্তার, জনতার মিছিল, থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঈদগড়
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নে ‘আল্লাহ’কে নিয়ে কটুক্তি ও গালাগাল করার দায়ে এক হিন্দু যুবককে আটক করা হয়েছে। পরে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টার দিকে ঈদগড় ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ঘুইন্ন্যা পাড়ার বাসিন্দা খোকন দে’র ছেলে নিখিল দে’র কাছ থেকে বাজারে ১টি সেলুনের দোকানে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মোঃ হোসেনের ছেলে খাইরুল আমিন চুল কাটাচ্ছিলেন। ওই সময় নিখিল দে ‘আল্লাহ’কে নিয়ে কটুক্তি করলে বিষয়টি নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। ঘটনাটি ব্যাপক আকার ধারণ করবে সন্দেহ করে নাপিত নিখিল দে স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়।

এদিকে তড়িৎ গতিতে বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তৌহিদী জনতা ও ইসলামপ্রিয় মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে স্লোগান দিতে দিতে পুলিশ ক্যাম্পে শাস্তির দাবিতে একত্রিত হযন।

বিষয়টি ব্যাপক আকার নেয়ায় তৎক্ষণাৎ পরিস্থিতি সামাল দিতে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জাফরুল্লাহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। ওইদিন রাতেই কক্সবাজার সদর, রামু ও ঈদগাঁও সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঈদগড়ে ছুটে আসেন।

এমপি কমল, জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পৃথক পৃথক ভাবে জনতার উদ্দেশ্যে শান্তনামূলক বক্তব্য দেন। তারা অপরাধী যে-ই হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৫ সেপ্টেম্বর খাইরুল আমিন বাদী হয়ে রামু থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর ৩২।

অপরদিকে ১৬ সেপ্টেম্বর পবিত্র জুমার দিন এ বিষয়টা নিয়ে পুনরায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ার আশংকা সৃষ্টি হলে রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ একদল পুলিশ ঈদগড় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের চৌরাস্তার মোড়ে দিনব্যাপী অবস্থান নেযন।

বিষয়টির ব্যাপারে ঈদগড় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জাফরুল্লাহ ১৬ সেপ্টেম্বর রাত ৯টা ৩৩ মিনিটে মুঠোফোনে জানান, এখন পর্যন্ত এলাকার পরিবেশ পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে, পাশাপাশি অভিযুক্ত নিখিল দে’র বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে।

অপরাধী যতই শক্তিধর হোক না কেন পুলিশ সবসময় তার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সে রয়েছে বলে জানান তিনি।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!