ষষ্ঠ শ্রেণীর ভর্তি কার্যক্রম এক সপ্তাহ স্থগিত

ষষ্ঠ শ্রেণীর ভর্তি কার্যক্রম এক সপ্তাহ স্থগিত

ডেস্ক রিপোর্ট
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

সরকারি নির্দেশনার কারণে ১১ বছরের কম বয়সী শিশুরা এবার ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তির আবেদন করতে পারেনি। এ অবস্থায় করা এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে সারাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামী এক সপ্তাহের জন্য ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

এছাড়া ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেয়া ১১ বছর বয়সের শর্তটি স্থগিত করে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে ১১ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের ভর্তির ক্ষেত্রে আর কোন বাধা নেই।

অনেক অভিভাবক ও শিক্ষার্থী অনলাইনে ভর্তির আবেদন করতে গেলে যাদের বয়স ১১ বছরের কম, তাদের আবেদন সফটওয়্যার গ্রহণ করছিল না। এ কারণে সার্ভার মোডিফাই (সফটওয়্যার) করার নির্দেশও দিয়েছেন আদালত।

এক অভিভাবকের করা রিটের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি জে বিএম হাসান ও মো. খায়েরুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে আজ রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক। তার সাথে ছিলেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার মনজুর এলাহী পরাগ ও আইনজীবী অ্যাডভোকেট আইনুন নাহার।

এ বিষয়ে রিটকারী মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের আইনজীবী ব্যারিস্টার মনজুর এলাহী পরাগ সাংবাদিকদের জানান, মুন্সীগঞ্জ সদরের মাঠ পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ২০২০ সালে পঞ্চম শ্রেণী থেকে ষষ্ঠ শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হয় এক শিক্ষার্থী। এরপর কাছাকাছি এভিজেএম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্যে গেলে তার ভর্তি নেয়নি। স্কুল থেকে জানানো হয় গত ১৩ ডিসেম্বর সরকারের জারি করা সার্কুলার অনুযায়ী ভর্তির ক্ষেত্রে ২০১০ সালের ১ জানুয়ারির পরে জন্ম নেয়া কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি নিতে পারবে না স্কুল।

এরপর রিটকারী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান শিক্ষা মন্ত্রণালয়, শিক্ষা অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে ভর্তির বিষয়ে সমাধান করার জন্য ২৩ ডিসেম্বর একটি আবেদন করেন। ওই আবেদনের সাড়া না পেয়ে তিনি পরবর্তীতে সার্কুলার চ্যালেঞ্জ করে এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে গত ২৭ ডিসেম্বর জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। রিটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি), মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক, জেলা প্রশাসক (ডিসি), জেলা শিক্ষা অফিসার, প্রধান শিক্ষক মাঠ পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও প্রধান শিক্ষক এ.ভি.জে.এম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে বিবাদী করা হয়।

ওই রিটের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন হাইকোর্ট।

ব্যারিস্টার মনজুর এলাহী পরাগ সাংবাদিকদের জানান, এতদিন অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করা হলেও মাউশি কর্তৃপক্ষ এবারই প্রথমবারের মতো যান্ত্রিক পদ্ধতিতে টেলিটক লিমিটেডের বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে আবেদন গ্রহণ ও ভর্তিতে লটারির আয়োজন করেছে। লটারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামীকাল। অথচ লাখ লাখ ভর্তিচ্ছু শিশু বয়সের ফাঁদে পড়ে এখনও আবেদনই করতে পারেনি।