কাউন্সিলর মিজানের বোনের বাড়িতে ৬০০০০ ইয়াবা, পালিয়ে গেলেন বাড়ির মালিক

কাউন্সিলর মিজানের বোনের বাড়িতে ৬০০০০ ইয়াবা, পালিয়ে গেলেন বাড়ির মালিক

বিশেষ প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরের উত্তর নুনিয়াছড়া থেকে ৬০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ইয়াবা পাচারে জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে একজন টমটম চালক। পুলিশের অভিযানকালে পালিয়ে যান বাড়ির মালিক মমতাজ মিয়া ও তার স্ত্রী লাকী।

পুলিশ জানিয়েছেন, উত্তর নুনিয়াছড়া এলাকায় ইয়াবার চালান মজুদের খবর পেয়ে বুধবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে অভিযান চালায় সদর মডেল থানা পুলিশের একটি দল। অভিযানে উত্তর নুনিয়াছড়া বড় কবরস্থান এলাকার কাছে মমতাজ মিয়ার বাড়ির একটি কক্ষ থেকে ৬০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। ইয়াবাগুলো মাছ ধরার জালে মোড়ানো ছিল।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দে সাংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। বাড়িতে প্রবেশের সময় দুই যুবককে আটক করা হয়। তারা হলেন ফিরোজ আলম (২৬) ও মোহাম্মদ সুমন (২৫)। পরে বাড়িতে তল্লাশী চালিয়ে ৬০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। আটকদের মধ্যে মোহাম্মদ সুমন টমটম চালক।

তিনি জানান, তিনজন ব্যক্তি মমতাজ মিয়ার টিনশেড বাড়িটি ভাড়া নিয়েছিল। ওই বাড়িতে তারা ফিশিং বোটের জালসহ অন্যান্য জিনিসপত্র রাখতেন। তবে অভিযানে তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি। যে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে তারা ইয়াবা পাচারের সাথে জড়িত কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, যে বাড়ি থেকে ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয় সেই বাড়ির মালিক মমতাজ মিয়া কক্সবাজার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিজানুর রহমান মিজানের ভগ্নিপতি। পুলিশের অভিযান চলাকালে মমতাজ মিয়া ও তার স্ত্রী লাকি পালিয়ে যান। পরে পুলিশ সন্ধ্যায় ওই বাড়িতে দ্বিতীয় দফা অভিযান চালায়। তবে ওই সময় কোন ধরণের ইয়াবা কিংবা মাদক পাওয়া যায়নি।

দুই দফা অভিযানেই পৌর কাউন্সিলর মিজানুর রহমান মিজান উপস্থিত ছিলেন।