রাজাপালং ৯নং ওয়ার্ড উপ-নির্বাচন

‘পিতার রাজ্যে পুত্রের প্রত্যাবর্তন’, বিপুল ভোটে নতুন মেম্বার হেলাল উদ্দিন

রাজাপালং ৯নং ওয়ার্ড উপ-নির্বাচন ‘পিতার রাজ্যে পুত্রের প্রত্যাবর্তন’, বিপুল ভোটে নতুন মেম্বার হেলাল উদ্দিন

আনছার হোসেন
সম্পাদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

বাবা বখতেয়ার আহমদ ছিলেন ওই ওয়ার্ডের নির্বাচিত ইউপি মেম্বার। মানুষের কাছে যিনি ছিলেন ‘বখতেয়ার মেম্বার’ নামেই পরিচিত। মাত্র কয়েকটা দিনের ব্যবধান! এখন সেই ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন সেই বখতেয়ার মেম্বারেরই মেঝো ছেলে ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন। বাবার হঠাৎ মৃত্যুর পর শূণ্য হওয়া এই পদের উপ-নির্বাচনে বিপুল ভোটে মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন ছেলে হেলাল উদ্দিন।

তিনি শুধু নির্বাচিত হয়েছেন তা-ই নয়, তাকে এখন দেখতেও ঠিক বাবার মতোই লাগছে। মুখে হালকা দাঁড়ি। চেহারার অবয়বে বাবার মুখচ্ছবি। উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মানুষ যেন আবারও তাদের ‘বখতেয়ার মেম্বার’কেই ফিরে পেয়েছেন!

‘পিতার রাজ্যে পুত্রের প্রত্যাবর্তন’, বিপুল ভোটে নতুন মেম্বার হেলাল উদ্দিন
বাবা বখতেয়ার মেম্বার ও ছেলে হেলাল উদ্দিন, যেন একই প্রতিচ্ছবি

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) ছিল রাজাপালং ইউনিয়নের বৃহত্তর ও আলোচিত কুতুপালং এলাকার (৯নং ওয়ার্ড) ইউপি সদস্য পদে উপ-নির্বাচন। সেই নির্বাচনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন (মোরগ প্রতীক)। তিনি সর্বাধিক ২ হাজার ৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী নুরুল হক খান (আপেল) ৯০৮ ভোট পান।

পুলিশের ‘ক্রসফায়ারে’ ওই ওয়ার্ডের নির্বাচিত মেম্বার বখতেয়ার আহমদ নিহত হওয়ার পর সদস্য পদটি (মেম্বার) শূণ্য ঘোষণা করা হয় এবং উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ওই তফসিলে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। এদেরই একজন মরহুম বখতেয়ার আহমদের মেঝো ছেলে ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন। যিনি এখন থেকে ‘হেলাল মেম্বার’ নামেই পরিচিতি পেতে শুরু করেছেন।

‘পিতার রাজ্যে পুত্রের প্রত্যাবর্তন’, বিপুল ভোটে নতুন মেম্বার হেলাল উদ্দিন
উপ-নির্বাচনে ভোট দিচ্ছেন প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকাল ৯টায় উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। পরে ভোট গণনা শুরু করেন ভোট গ্রহণের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তারা।

ভোটগণনা শেষে বেসরকারি ভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন। ঘোষিত ফলাফলে নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী থেকে অর্ধেকের চেয়ে বেশি (১,০৮৯ ভোট বেশি) পেয়ে মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন (মোরগ)। তিনি পান দুই হাজার ৯৮ ভোট। এছাড়াও প্রতিদ্বন্ধী অন্য প্রার্থীদের মধ্যে নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী নুরুল হক খান (আপেল) পেয়েছেন এক হাজার ৯ ভোট।

এছাড়াও ফুটবল প্রতীক নিয়ে আবদুল হক ৩৪৯ ভোট, তালা প্রতীক নিয়ে জাহাঙ্গীর আলম ৫৭ ভোট পান। তাছাড়াও মাঠে না থাকা অন্য ৪ প্রার্থীর মধ্যে পানির পাম্প প্রতীক নিয়ে শাহিনা বেগম ২ ভোট, টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে মুজিবুর রহমান ও বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক নিয়ে রাশেদুল হক পান মাত্র ১ ভোট করে। এছাড়া আরেক প্রার্থী ভ্যান গাড়ী প্রতীক নিয়ে কবির আহমদ কোন ভোটই পাননি।

উখিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ ইরফান উদ্দীন এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

‘পিতার রাজ্যে পুত্রের প্রত্যাবর্তন’, বিপুল ভোটে নতুন মেম্বার হেলাল উদ্দিন
নির্বাচিত হেলাল উদ্দিন ও প্রতিদ্বন্ধী অন্য ৩ প্রার্থী একই ফ্রেমে

রাজাপালং ইউনিয়নের এই ওয়ার্ডে (৯নং ওয়ার্ড) মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ৪৫০ জন। এদের মধ্যে ৩ হাজার ৫৬১ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। যার মধ্যে ৩ হাজার ৫১৭ ভোট বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন কারণে ৪৪ জন ভোটারের দেয়া ভোট বাতিল করা হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তার হিসাব মতে, এই উপ-নির্বাচনে ৮০ দশমিক শূণ্য দুই ভাগ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

এদিকে বেসরকারি ফলাফল পেয়ে জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি তার বাবার মতো আজীবন মানুষের সেবা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

প্রসঙ্গত, রাজাপালং ৯নং ওয়ার্ডে মোট ৪ হাজার ৪৫০ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটা ২ হাজার ৩০৬ জন এবং মহিলা ভোটার ২ হাজার ১৪৪ জন।