মদিনায় মহানবীর রওজা জেয়ারত শুরু রোববার, তবে যে সব শর্তে

মদিনায় মহানবীর রওজা জেয়ারত শুরু রোববার, তবে যে সব শর্তে

প্রাণঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করনোর কারণে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পবিত্র রওজা মোবারক জেয়ারত (দেখা, সালাম দেয়া), রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়ার কার্যক্রম বন্ধ ছিল। দীর্ঘ প্রায় ৮ মাস পর আগামীকাল রোববার (১৮ অক্টোবর) থেকে সর্ব সাধারণের জন্য শর্তসাপেক্ষে পবিত্র রওজা শরিফ জেয়ারত ও রিয়াজুল জান্নাহ উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

এর মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়তে না পারায় এবং রওজাহ জেয়ারত করতে না পারার মুসলিম উম্মাহর হৃদয়ের হাহাকার বন্ধ হবে। প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের রওজা জেয়ারত ও রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়ার সুযোগ পাবেন মুমিন মুসলমান। তবে এর জন্য অবশ্যই প্রত্যেককে ‘ইতামারনা’ অ্যাপ-এর মাধ্যমে নিবন্ধন এবং করোনামুক্ত রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ঘোষণা দেয় যে, ১৪৪২হিজরি সনের ১ রবিউল আউয়াল মোতাবেক ১৮ অক্টোবর থেকে ‘ইতামারনা’ ওমরাহ অ্যাপের মাধ্যমেই রওজা শরিফ জেয়ারত ও রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়ার সুযোগ দেয়া হবে।

সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, ৪ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে পবিত্র ওমরাহ কার্যক্রম। এ কার্যক্রমে অংশগ্রহণের জন্যও ‌‘ইতামারনা’ অ্যাপে নিবন্ধন পক্রিয়া সম্পন্ন করেই ওমরাহ করছেন মুসলিম উম্মাহ। একই অ্যাপ ব্যবহার করে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পবিত্র রওজা মোবারক জেয়ারত ও রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়তে পারবেন মুমিন মুসলমান।

মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হলে মসজিদে নববির ইমাম, মুয়াজ্জিন, স্বেচ্ছাসেবক এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দায়িত্বশীলরা ছাড়া কেউ মসজিদে নববিতে নামাজ পড়তে পারেনি। সেখানেও দীর্ঘ সর্বসাধারণের নামাজ পড়াও বন্ধ ছিল। তবে গত ৩১ মে থেকে শর্তসাপেক্ষে বিধি ও নিয়ম মেনে শুরু নামাজ। তবে মসজিদে নববির পুরাতন অংশ, রিয়াজুল জান্নাহ এবং রওজা শরিফে নামাজ ও জেয়ারত স্থগিত ছিল। অবশেষে আগামীকাল রোববার থেকে পুরাতন মসজিদ, রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ এবং পবিত্র রওজা শরিফ জেয়ারত শুরু হতে যাচ্ছে।

জেয়ারত ও সালাম প্রেরণের জন্য রওজা শরিফ পুনরায় খুলে দেয়া উপলক্ষে হারামাইন শরিফাইন অধিদপ্তরের প্রেসিডেন্ট শায়খ আবদুর রহমান আস-সুদাইস দুই মসজিদের সেবা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। শনিবার (১৭ অক্টোবর) তিনি মদিনা সফর করবেন এবং মদিনার মসজিদে নববিতে ইশা নামাজের ইমামতি করারও কথা রয়েছে।

পূর্বঘোষিত নিয়ম অনুযায়ী ‘ইতামারনা’ অ্যাপে নিবন্ধন সাপেক্ষে নির্দিষ্ট প্রবেশ পথ ব্যবহার করে পুরাতন মসজিদ, রিয়াজুল জান্নাহ এবং পবিত্র রওজা শরিফ জেয়ারতের সুযোগ পাবেন মুসলিম উম্মাহ। প্রতি জেয়ারতকারীর জন্য ৩০ মিনিট সময় বরাদ্দ থাকবে। এ সময়ের মধ্যে জেয়ারতকারীরা রিয়াজুল জান্নায় নামাজ পড়া এবং সালাম প্রদান কার্যক্রম সম্পন্ন করবেন।

মদিনায় মহানবীর রওজা জেয়ারত শুরু রোববার, তবে যে সব শর্তে

রওজা শরিফে প্রবেশের শর্ত ও তথ্য
> ‘ইতামারনা’ অ্যাপে নিবন্ধন।
> রিয়াজুল জান্নাহতে নামাজ পড়তে নিজ নিজ ম্যাট বা মুসাল্লা সঙ্গে আনতে হবে।
> রওজা শরিফ জেয়ারত ও রিয়াজুল জান্নাহতে হ্যান্ডশ্যাক তথা মোসাফাহা করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
> ‘ইতামারনা’ অ্যাপ কর্তৃক নির্ধারিত সময়ে জেয়ারতে যেতে হবে।
> জেয়ারতের সময় মাস্ক পরিধান করতে হবে।
> উভয় হাত স্যানিটাইজ করতে হবে।
> সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হবে।
> শুধু ফজর, জোহর, আসর ও মাগরিবের নামাজের পর তা সম্পন্ন করতে হবে।
> নির্ধারিত প্রবেশ পথ ব্যবহার করতে হবে। তাহলো-
– পুরুষের জন্য : বাব আল-সালাম তথা ১নং প্রবেশ পথ। প্রতিদিন ১১ হাজার ৮৮০ জন।
– পুরুষের জন্য : বাব আল-বেলাল তথা ৩৮নং প্রবেশ পথ। প্রতিদিন ১৬৫০ জন।
– নারীদের জন্য শুধু বাব আল-ওসমান তথা ২৪নং প্রবেশ পথ। প্রতিদিন ৯০০ জন।

উল্লেখ্য, ‘ইতামারনা’ অ্যাপে নিবন্ধন ছাড়া কোনো ব্যক্তি রিয়াজুল জান্নাহ ও রওজা শরিফ জেয়ারত করতে পারবেন না। নিবন্ধনকালে অবশ্যই জেয়ারতকারীকে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট জমা দিতে হবে। আগের ঘোষণা অনুযায়ী মসজিদে নববি ইশার নামাজের পর বন্ধ হয়ে যাবে এবং ফজরের ১ ঘণ্টা আগে থেকে তা পুনরায় খোলা থাকবে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!