টেকনাফে নারীসহ ৩ মাদক কারবারি ধরা, ইয়াবা ও টাকা উদ্ধার

ইয়াবার বড় চালান ধরা পড়লেও ব্যবসায়ীরা কোথায়?

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর পৃথক দুটি অভিযান চালিয়ে ইয়াবা ও মাদক বিক্রির নগদ টাকা উদ্ধার এবং এক নারীসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১১ হাজার ৬00 পিস ইয়াবা, ৪ হাজার দুইশত নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক দেওয়ান মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান। তিনি জানান, ১৩ অক্টোবর (মঙ্গলবার) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ বাহাছড়া ইউনিয়ন নোয়াখালী পাড়া এলাকার বসবাসরত মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা পুরাতন রোহিঙ্গা আলী আহমদের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মোহাম্মদ সিদ্দিকের (৪৯) বসতবাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। ওই সময় একটি শপিং ব্যাগের ভেতর মওজুদ করে রাখা ১০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এই অভিযানে ইয়াবা পাচারের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে দুই মাদক কারবারীকে আটক করা হয়। আটক মাদক ব্যবসায়ীরা হচ্ছে বাহারছড়া ইউনিয়নের কোনাপাড়া এলাকার উলামিয়ার ছেলে আলী আহমদ (৩৮) ও একই ইউনিয়নের নোয়াখালী পাড়ার পুরাতন রোহিঙ্গা আলী আহমদের ছেলে মোহাম্মদ সিদ্দিক (৪৯)।

অপরদিকে গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে, একটি বসতবাড়ীতে ইয়াবা মওজুদ করে রাখা হয়েছে। ওই সংবাদের ভিত্তিতে একইদিন বিকাল ৩টার দিকে টেকনাফ পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ড দক্ষিণ জালিয়াপাড়া এলাকায় তল্লাশী অভিযান চালিয়ে সেই বসতবাড়ীর শয়ন কক্ষে একটি প্লাস্টিকের বাক্সে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে রাখা এক হাজার ৬০০ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এ সময় ইয়াবা পাচারের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে রশিদ আহম্মদের স্ত্রী দিলদার বেগমকে (৩৫) আটক করা হয়। এছাড়াও তার স্বামী রশিদকে পলাতক আসামী করে মামলাও করা হয়েছে।

এদিকে ইয়াবাসহ আটক আসামীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে পরবর্তী কার্যক্রম শেষ করার জন্য টেকনাফ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!