ট্রাম্প সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছেন চিকিৎসকরা

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে চলছে নানা জল্পনা কল্পনার। একদিনে তার সমর্থকরা যেমন উদ্বিগ্ন তেমনি বিশ্বজুড়েই সবার দৃষ্টি মার্কিন প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্যের দিকেই। কিন্তু সর্বশেষ তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে অ¯পষ্টতার। আর এ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ট্রাম্পের চিকিৎসকরা।

এ নিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম ডেইলি বিস্টেও একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে বিশ্লেষক লরেন্স ও. গোস্টিন বলেন, যখন প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্য নিয়ে সব থেকে বেশি স্বচ্ছতার প্রয়োজন ছিল তখন তার চিকিৎসকরা অর্ধসত্য, বিভ্রান্তিকর এবং রঙ লাগানো তথ্য প্রদান করছেন।

তিনি বলেন, এই সময়ে ট্রাম্পের চিকিৎসকদের উচিৎ ছিল জনগণকে ট্রাম্পের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা প্রদান করা কিন্তু তারা করছেন তার ঠিক উল্টোটা। তারা প্রেসিডেন্টের অসুস্থতা সম্পর্কে জনগণকে ভুল তথ্য দিচ্ছেন।

প্রেসিডেন্টের চিকিৎসক শন কনলি শনিবার টেলিভিশনে একটি বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তিনি ট্রাম্পের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে স্পষ্ট করতে চেয়েছেন। কিন্তু তিনি এটুকুও জানাতে পারেননি যে, ট্রাম্পকে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে কিনা কিংবা তার শরীরের তাপমাত্রা এখন কতো। এরপর শনিবার রাতে তিনি আবারো টেলিভিশনে শুধু জানান, প্রেসিডেন্টের অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।

এর আগে শনিবার সকালেই হোয়াইট হাউসের চিকিৎসকদের টিম থেকে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। তিনি হোয়াইট হাউসে ফেরার বিষয়ে কথাবার্তা বলছেন। প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্যের উন্নতির বিষয়টি নিয়েও বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। কারণ, একইদিনে দ্যা নিউ ইয়র্ক টাইমস ও এপি তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, শুক্রবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে হোয়াইট হাউজেই অক্সিজেন দিতে হয়েছে। তার চিফ অব স্টাফ মার্ক মিয়াডোজ ফক্সকে জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্টের অবস্থার উন্নতি হলেও তার গায়ে জ্বর রয়েছে এবং তার রক্তে অক্সিজেনের লেভেল দ্রুত কমে আসছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!