পোকখালীতে আ.লীগের সভাপতির পরিচয়ে জমি দখলের চেষ্টা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার সদর উপজেলার পোকখালীতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পরিচয়ে অন্যের জমি জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রাপ্ত অভিযোগ মতে, ইউনিয়নের ইছাখালীতে মোজাহের আহমদের নেতৃত্বে ১০/১২ জন সন্ত্রাসি জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে জমির মালিকদের উপর হামলা করে ও মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে মোজাহের আহমদসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী দায়ের করেছেন ভোক্তভোগীরা।

পোকখালী ইউনিয়নের ইছাখালী গ্রামের বাসিন্দা মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে রফিকুল ইসলাম ও মৃত আবু শামার ছেলে মোক্তার আহমদ কর্তৃক কক্সবাজার সদর মডেল থানায় দায়ের করা সাধারণ ডায়েরীতে উল্লেখ করেন ইছাখালী মৌজার বিএস খতিয়ার নং-৩৯১,দাগ নং-১০৪৫ এর জমির পরিমান ১.৯১ একর ও বিএস দাগ নং-১২১০ এর জমির পরিমান ৩.০৯সহ সর্বমোট ৫.০০ একর জমি দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে ক্রয় সুত্রে ভোগ দখলে আছেন। ওই জমির মালিকদের বিরুদ্ধে হয়রানি করতে সম্প্রতি একটি পক্ষ উপজেলা ভূমি অফিসে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১৬ সেপ্টেম্বর সকালে ইউনিয়ন ভুমি উপসহকারি কর্মকর্তা সরেজমিনে তদন্তে গেলে তাঁর উপস্থিতিতে মোজাহেরের নেতৃত্বে ১০/১২ জন সন্ত্রাসি জমির মালিকদের উপর হামলা করে। এতে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে জমির মালিকরা প্রাণে রক্ষা পেলেও খারাপ ভাষায় গালমন্দ ও মেরে ফেলার প্রকাশ্য হুমকি দেয়।

জমির মালিক রফিকুল ইসলাম জানান, ব্যবসায়িক কাজে তারা দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় অবস্থান করায় অনেকটা দুর্লোভের বসে তারা জমি জবর দখলের চেষ্টা করে আসছে।

তিনি জানান, মোজাহের নিজেকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পরিচয় দিয়ে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে প্রতিনিয়ত হুমকি ও ভয়ভীতি প্রর্দশন করে আসছে।

স্থানীয়রা মনে করছেন, সরকারী দলের নেতা হয়ে মোজাহেরের এ ধরণের দাপটের কারণে এলাকায় দলের ভাবমুর্তিও চরমভাবে ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

এলাকাবাসির অভিযোগের ভিত্তিতে মোজাহেরের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পানি চলাচলের একটি খাল তারা দখল করতে চেয়েছিল। তাদের দখল প্রতিরোধ করতে গিয়ে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছে বলে স্বীকার করেন তিনি। তবে হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এদিকে এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (চলতি দায়িত্বে) মাসুম খান জানান, হুমকির বিষয়ে সাধারণ ডায়েরী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগটি তদন্তের জন্য এএসআই আফসার উদ্দিনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!