সাংবাদিক মোনায়েমকে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে স্মরণ করল ‘নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টার’

সাংবাদিক মোনায়েমকে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে স্মরণ করল ‘নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টার’

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

‘সাংবাদিক আবদুল মোনায়েম খান সংবাদপত্র জগতের একজন অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব ছিলেন। শিক্ষা-দীক্ষায়, পেশার সততায় এবং একজন আদর্শ মানুষ ও সংবাদকর্মীর যতগুলো গুণ থাকা দরকার তার সবই ছিল। করোনায় তাঁর হঠাৎ মৃত্যু কক্সবাজার সংবাদপত্র শিল্পে বিরাট শুণ্যতার সৃষ্টি করেছে এবং এটা সহজেই পূরণ হবে না।’

সাংবাদিক আবদুল মোনায়েম খান স্মরণে আয়োজিত ভার্চুয়াল সভায় বক্তারা এমন অভিমত ব্যক্ত করেন।

তারা বলেন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে একটি আইসিইউ বেড না পেয়ে এরকম একজন খ্যাতিমান সাংবাদিকের মৃত্যু কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নির্লোভ, নিরহঙ্কার সাংবাদিক মোনায়েম খানের এই দুঃখজনক মৃত্যুর দুই মাস অতিক্রান্ত হলেও তাঁর পরিবার সরকারি সাহায্য হিসেবে একটি পয়সাও না পাওয়া আরো বেদনাদায়ক।

বক্তারা এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।

কক্সবাজার নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টার বৃহস্পতিবার রাতে অনলাইন প্লাটফর্মে আয়োজিত এই স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রুহুল আমীন গাজী।

নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টারের সভাপতি অ্যাডভোকেট রমিজ আহমদের সভাপতিত্বে ও সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক জিএএম আশেক উল্লাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই স্মরণ সভায় মোনায়েমের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন নজরুল গবেষক ও কবি আবদুল হাই শিকদার, প্রখ্যাত চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডা. জিএম কাদেরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক ড. হাসমত আলী, বিএফইউজে’র সিনিয়র সহসভাপতি নুরুল আমিন রুকন, মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, ফাইনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের সিনিয়র রিপোর্টার সৈয়দ আলী আসফার, কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুবর রহমান, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি মুহম্মদ নুরুল ইসলাম, দৈনিক ইনকিলাবের বিশেষ সংবাদদাতা শামসুল হক শারেক, দৈনিক ইনকিলাবের জেলা সংবাদদাতা জাকের উল্লাহ চকোরী, দৈনিক হিমছড়ি সম্পাদক হাসানুর রশীদ, নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টারের পরিচালক হুমায়ুন সিকদার, অধ্যাপক ফরিদুল আলম, সাংবাদিক মোনায়েম খানের ছোট ভাই আবদুল বাসেত খান, মোনায়েম খানের একমাত্র মেয়ে আফ্রা নাওয়ার, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক কবি রুহুল কাদের বাবুল, বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট কল্যাণ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হাশিম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ি মোহাম্মদ ফেরদাউস, ছড়াকার জহিরুল ইসলাম, রামু লেখক ফোরামের সভাপতি হাফেজ আবুল মনজুর।

সাংবাদিক মোনায়েম খান মৃত্যুর আগে ডেইলি ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন। এছাড়া তিনি ডেইলী স্টার, ডেইলি সান এর কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি এবং দৈনিক কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি, কক্সবাজার বেতার কেন্দ্রের বার্তা সম্পাদক এবং কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক কক্সবাজার, হিমছড়ি, বাঁকখালী, দৈনিক দৈনন্দিন পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন।

মোনায়েম খান কক্সবাজার শহরের তারাবনিয়ারছরা কবরস্থান রোডের মরহুম বদিউল আলম কানুনগোর জ্যেষ্ঠ ছেলে। তিনি গত ৭ জুন করোনায় আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তার পৈত্রিক বাড়ি কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ায়।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!