কলাতলীতে হোটেল দখলের চেষ্টা, হামলা ভাংচুর ও লুটপাট

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরের কলাতলীতে হোটেল দখলে নিতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। আজ শুক্রবার (১৪ আগষ্ট) সকালে হোটেল পিংক শো’রে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর মডেল থানায় ৭ জনকে আসামি করে এজাহার দিয়েছেন হোটেলের ‘প্রকৃত’ মালিক নাছির উদ্দীন মোঃ মহসিন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, এই হোটেলের মালিকপক্ষের নিয়োগকৃত আইনজীবী ছিলেন এডভোকেট রফিকুল ইসলাম। তিনি দুর্লোভের বশে হোটেলের নামে জাল জালিয়াতি করে একটি চুক্তিপত্র সৃষ্টি করেন। ওই চুক্তির উপর ভর করে তার ভাই মাহসুমুল ইসলাম রাসেলসহ কিছু সন্ত্রাসী নিয়ে তার হোটেল জবর দখল করতে চেষ্টা করেছে বারবার।

এ নিয়ে বহুবার বৈঠক হয়েছে এবং এড. রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে পুলিশ রিপোর্টও হয়েছে। এসব বিষয়ের পরও তারা অন্যায় ভাবে তার হোটেল দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৯ আগষ্ট হোটেলে তার উপর হামলা করতে যায় সন্ত্রাসীরা।

খবর পেয়ে ওই সময় সদর থানার এসআই সুভাষ ও কয়েকজন সাংবাদিক যান হোটেলে। পরে এসআই সুভাষ এই বিষয়টি মিমাংসার জন্য হোটেলে পৃথক ২টি তালা দিয়ে নিরপেক্ষ দুইজনের হাতে চাবি জমা দেন। কয়েকদিনের মধ্যে দুইপক্ষ বসে সৃষ্ট বিরোধ সমাধানের কথা থাকলেও সমাধানের পথে না এসে শুক্রবার সকালে অস্ত্রধারি ১৫/১৬ জন লোক নিয়ে হোটেলের থালা ভেঙে এলইডি টিভিসহ ৩/৪ লাখ টাকার মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় হোটেলের মালিক নাছির উদ্দীন মোঃ মহসিনের দায়ের করা এজাহারের ভিত্তিতে এসআই আলীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ খাইরুজ্জামান অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

এদিকে এঘটনা নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হতে পারে বলেও আশংকা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

এই ঘটনায় হোটেল মালিক মুহসিন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!