করোনার দুর্দিনে মানুষের পাশে উখিয়ার রাজনীতিবিদরা

করোনার দুর্দিনে মানুষের পাশে উখিয়ার রাজনীতিবিদরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, উখিয়া
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

করোনাভাইরাসের এই দুর্দিনে ভিন্ন ভিন্ন প্রেক্ষাপটে উখিয়ার রাজনীতিবিদরা অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। মানুষের দুঃসময়ে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, জাতীয় পার্টির অধ্যাপক নুরুল আমিন ভূট্টো ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরীসহ সালাহউদ্দিন মেম্বার, ফরিদুল আলম কন্ট্রাকটরদের দেখা গেছে বিভিন্ন ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে দিবা-রাত্রি পরিশ্রম করতে।

এই সময়ে অসুস্থজনিত কারণে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী চিকিৎসাধীন থাকায় তিনি তেমন করে বেরোতে পারেননি।

উখিয়ার রাজনীতিবিদরা প্রকাশ্যে মানুষের পাশে দাঁড়ালেও জামায়াত নেতারাও গোপনে সাধারণ মানুষের জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

এছাড়াও রত্নাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী, হলদিয়া পালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ আলম ও পালংখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন চৌধুরী এবং উখিয়া উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশের বিশেষ টিম সার্বক্ষনিক অসহায় মানুষের সেবাতেই ছিলেন। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি উখিয়ার রাজনীতিবিদরা প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছেন। উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে দলীয় নেতা-কর্মীরা কাজ করেছেন। দলীয় প্রধানের দিকনির্দেশনায় করোনাভাইরাস মোকাবেলায় উখিয়ার রাজনীতিবিদরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

সরকারের ঘোষিত লকডাউন ঘোষণার পূর্বে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ, পরবর্তী সময়ে লকডাউন কার্যক্রম নিশ্চিত করা, করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে থাকা লোকদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। একই সঙ্গে চালিয়ে যাচ্ছেন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ক্যাম্পেইন। পাশাপাশি নিবেদিত প্রাণ পুলিশ বাহিনী রাতদিন আক্রান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। অসহায় মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বিতরণ করেছেন ত্রাণ সামগ্রী। রমজান মাসে এতিম, প্রতিবন্ধী, ভাসমান ও ছিন্নমূল অনাহারী মানুষের মধ্যে বিতরণ করেছেন ইফতার সামগ্রী।
উখিয়ার রাজনীতির মাঠ সরগরম হতে শুরু করেছে। একদিকে পৌরসভার দাবিতে সোচ্ছার, অন্যদিকে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে এখন থেকে নড়েচড়ে বসেছেন রাজনৈতিক নেতারা।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে মাঠের রাজনীতি আর দলকে আরও সুসংহত করতে ইতোমধ্যে নড়েচড়ে বসেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি।

অন্যদিকে জাতীয় পার্টি নিজেদের অবস্থানও জানান দিতে পারছে না। জামায়াতে ইসলামী প্রকাশ্যে সভা-সমাবেশ করতে না পারায় দলটি রাজনীতির মাঠে রয়েছে অনেকটাই নিরব-নিস্তব্ধ। দলীয় কোন কর্মসূচি না থাকায় শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগও নেই তৃণমূলের কর্মীদের। এসব কারণেই রাজনীতির মাঠ থেকে হারিয়ে যাচ্ছে জামায়াতে ইসলামী।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!