মেজর সিনহা হত্যা মামলার পলাতক দুই আসামি পুলিশ নয়!, তাহলে ওরা কারা?

টেকনাফে ‘পুলিশের গুলিতে’ সাবেক সেনা কর্মকর্তা খুন!

ডেস্ক রিপোর্ট
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের পরিবারের করা মামলার পলাতক ২ আসামি নিয়ে তৈরি হয়েছে ধুম্রজাল। মামলার তদন্তকারি সংস্থা র‌্যাব বলছে, দুইজনের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ চলছে। আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, পুলিশের দেয়া তথ্যে মামলার এজাহারে থাকা দুইজন কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য নয়!

পুলিশের গুলিতে সাবেক মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনায় তার পরিবারের করা মামলায় গত বৃহস্পতিবার (৬ আগষ্ট) তৎকালিন টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপসহ ৭ আসামি আত্মসমর্পণ করলেও গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়া দুই আসামি এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন।

পলাতক দুই আসামি সিভিলিয়ান না আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য? ঘটনায় তাদের নিয়েই সৃষ্টি হয়েছে ধূম্রজালের।

মামলার এজাহারে ৮ নম্বর আসামি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে এসআই টুটুলকে। যদিও তার পিতার নাম দেয়া হয়েছে অজ্ঞাত। একই অবস্থা এজাহারে থাকা ৯ নম্বর আসামি কনস্টেবল মোস্তফা। এজাহারে বর্তমান ঠিকানা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, টেকনাফ মডেল থানা, কক্সবাজার। মামলার তদন্তকারি সংস্থা র‌্যাবও এখনও এদের হদিস করতে পারেনি।

র‌্যাব বলছে, এই দুই আসামির বিষয়ে খোঁজখবর চলছে। র‌্যাব পরিচালক আশিক বিল্লাহ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, মোট ৯ আসামির নাম এজহারভুক্ত হয়, যে ব্যাপারে আমরা অনুসন্ধান করেছি। বাকি দু’জন আসামির ব্যাপারে আমরা যাচাই-বাছাই করছি।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, মামলার এজাহারে থাকা পলাতক ২ আসামির কেউই কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য নন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ৯ জনকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে যে দু’জন আছে তারা কক্সবাজারের এখানে কেউ কাজ করে না।

গত ৩১ জুলাই রাতে শামলাপুরের পাহাড়ি এলাকা থেকে শুটিংয়ের কাজ শেষে ফেরার পথে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান।
সূত্রঃ সময় টিভি

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!