খুরুশকুলের শাহিনকে জড়িয়ে ‘মিথ্যা সংবাদ’, শাহিনের বক্তব্য

‘রাতের অন্ধকারে কলাতলীতে কোটি টাকার সরকারী জমি দখল’ সংবাদের ব্যাখ্যা ও বিবৃতি

কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক কক্সবাজার ৭১’ ও ডেইলি গনসংযোগের অনলাইনে পত্রিকায় একটি সংবাদ আমার দৃষ্টিগোছর হয়েছে। প্রকাশিত ওই সংবাদটি পড়ে আমি রীতিমত আশ্চর্য হয়েছি। পূর্ব শক্রকে কেন্দ্র করে সংবাদ মাধ্যমে এমন জগন্য বিথ্যা সংবাদ কিভাবে করে। জেলা পুলিশের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে আমাকে ফাঁসাতে আমার সম্পর্কে ভুল বার্তা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে আমার এলাকার প্রতিপক্ষ। গত ৩১ জুলাই দৈনিক কক্সবাজার ৭১ পত্রিকায় আমার নামে যে সংবাদটি করেছে ওইটা সম্পূর্ণ টাকা দিয়েছে করেছে বলে আমি মনে করি। যতোটুকু জানতে পেরেছি, ওইটা তাদের নিজস্ব প্রতিবেদক কিংবা কোন রিপোর্টার করেননি। টাকার বিনিময়ে ঢালাউভাবে মাদক ব্যবসায়ী, খুন, হত্যা, অপহরণ, ছিনতাই, ডাকাতি ও সিন্ডিকেট প্রধানসহ নানা অপরাধে অভিযুক্ত করে সংবাদ পরিবেশন করেছে। ওই সংবাদে আমার সাথে অন্যান্য নামের লোকজনদের নিয়ে আমার কোন বক্তব্য নেই। এটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্তের মাধ্যমেই ফুটে উঠবে। আসলেই কি অপরাধী নাকি নির্দোষ।

তবে গত একযোগ ধরে আমি জমির ব্যবসা, কাঠের ব্যবসা, মাছের ব্যবসার সাথে জড়িয়ে আছি। আমার ব্যবসা উন্নতি দেখে এলাকার কিছু মানুষের জেলাছে হচ্ছে। এবং পূর্ব শক্রতাকে কাজে লাগিয়ে আমার বিরুদ্ধে লেগেই আছে। আমি খুরুশকুলের মেহেদী পাড়ায় বিভিন্ন সময় নৈতিকতা অনুসরণ করে মানুষদের কল্যাণে কাজ করেছি। পাশ্ববর্তি কিছু মানুষের সাথে জায়গা বিরোধকে কেন্দ্র করে শক্রতাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে বিভিন্ন সময় মামলা মুকদ্দা দিয়ে আসছে। আমার প্রতিপক্ষরা সফলও হয়েছে গত ২০১৯ সালে।
লাখ লাখ টাকা খরচ করে আমাকে গায়েল করতে একটি মাদক মামলাতেও ঝুলিয়ে দেয় আমার নাম। হাস্যকর ব্যাপার হলো আমার বিরুদ্ধে মোবাইল চুরি ও মাছ চুরির মামলা পর্যন্ত দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। যা মানুষ হিসেবে বেঁচে আছি কষ্ট নিয়ে। আমার বিষয়টি নিয়ে পুলিশ তদন্ত করেও আমার বিরুদ্ধে শক্রতামীর বিষয়টি জানতে পেরেছে। শক্রদের দেয়া একটি মামলাতে কারাগারে পর্যন্ত যেতে হয়েছে আমাকে। দীর্ঘদিন কারাভোগ করে ফিরে এসেছি। মামলা জামিনেও আছি। কিন্তু শক্রদের মাথার ঘুম নেই। আবারও আমাকে আটকাতে তারা মরিয়া।

তাই চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে যাতে আমাকে আবারো জড়াতে পারে সে কারণে নামে-বেনামে বিভিন্ন পত্রিকায় আমার নাম জড়িয়ে মিথ্যা সংবাদ তৈরি করছে। দীর্ঘ কয়েক বছর পর তালকে তিল বানানোর জন্য মাদক ব্যবসায়ী বানাচ্ছেন পত্রিকায়। সম্পূর্ণ টাকার বিনিময়ে তা করেছে। আমি আমার বিরুদ্ধে এমন মিথ্যা সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার কাছে বিনীত অনুরোধ করছি এমন জগন্য ও মিথ্যা সংবাদের বিষয়ে বিভ্রান্ত না হতে।
অনুরোধক্রমে
শাহিন
পিতা: মৃত জুহুর আহমদ
খুরুশকুল।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!