কক্সবাজার সরকারি কলেজের জমি দখলের অভিযোগ সত্য নয় দাবী সরওয়ারের

সম্প্রতি কক্সবাজার সরকারি কলেজ গেইট এলাকায় কলেজের জমি দখলের অভিযোগ তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা ধরনের অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছেন, জমির দখলিয় মালিক সরওয়ার আলম। একটি মহল কলেজ কর্তৃপক্ষকে প্রভাবিত করে আমাকে ভূমিদস্যু হিসেবে চিহ্নিত করতে আমার বিরোদ্ধে কলেজের জমি দখলের অভিযোগ করে ফেসবুকে নানা ধরনের গালগল্প প্রচারের অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। আসলে কেউ বুঝে লিখছে, আর কেউ না জেনে না বুঝে ফেইসবুকে রীতিমত আমার বিরোদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে, আমি কলেজের জমি দাতা, আমাকে দখলবাজ বানানো দুঃখজনক। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
প্রকৃত ঘটনা হলো, কলেজ গেইট এলাকায় আমার বাবা গোলাম নবী গং বহু বছর বছর ধরে এম,আর,আর, খতিয়ান নং-৭২৯৯ ও আর,এস, খতিয়ান নং-৪৫৯ মুলে কলেজ গেইট এর পাশের মাত্র ১০ শতক জমি প্রকৃত মালিক হয় এবং দখলেও আছে।
এর আগে গোলাম নবী গং এর কাছ থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ ২ একর ৪৬ শতক জমি অধিগ্রহণ করে। সেই জমি নিয়ে কলেজের সাথে আমাদের কোন বিরোধ নেই। অপর দিকে আমাদের এই জমিটি সড়ক ও জনপদ বিভাগ বি,এস এ এসে খাস করে রেখেছে। এই নিয়ে সড়ক ও জনপদের সাথে গোলাম নবী গং এর আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। তবে
এই জমিটি কোন কালে কলেজের জায়গা ছিলনা, এর পরেও একটি মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার করে আমাদের পরিবারে চরম মান ক্ষুন্ন করে চলছে। এতে আমি বিষয় টির তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এই জমি আমার, কলেজের জমি হলে এতোদিন তারা সীমানা দেয়াল না দিয়ে উম্মোক্ত রাখার উদ্দ্যেশ্য কি?
আর যদি কলেজের জমিই হয়ে থাকে তাহলে আমার দুইপাশে স্থায়ী স্থাপনা গড়ে উঠল কিভাবে? অবৈধ হলে শুধু আমার ঝুপরি দোকানটি অবৈধ? পাশের পাকা দোকানগুলো অবৈধ নয়? কেন পাশের অন্যান্য দোকানের বিরোদ্ধে তাদের অভিযোগ নেই? কোন উদ্দেশ্যে কলেজ কর্তৃপক্ষ আমার বিরোদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে? আমার বোধগম্য নয়। আশা করি কলেজ কর্তৃপক্ষের শুভবুদ্ধির উদয় হবে, অতঃপর অপপ্রচার বন্ধ করবেন।
ফেসবুকে বিভ্রান্ত না হয়ে সংশ্লিষ্টদের সঠিক তথ্য জেনে মতামত প্রকাশ করার বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন, জমির মালিক সরওয়ার।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!