নাগু কোম্পানি আর নেই

নাগু কোম্পানি আর নেই

আনছার হোসেন
সম্পাদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরের আলোচিত ব্যবসায়ী, কলাতলী এলাকার সুপরিচিত সুগন্ধা গেষ্ট হাউসের মালিক ও শহরতলী খুরুস্কুল ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু সুলতান ওরফে নাগু কোম্পানী আর নেই। তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানেই আজ ‍বৃহস্পতিবার (২৮ মে) সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শাহীন আবদুর রহমান তার মৃত্যুর বিষয়টি কক্সবাজার ভিশন ডটকমকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকালে নাগু কোম্পানিকে অর্ধমৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। হাসপাতালে আনার কিছুক্ষণ পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

ডা. শাহীন আবদুর রহমান জানান, আবু সুলতান ওরফে নাগু কোম্পানির ডায়াবেটিস ও নিউমোনিয়াজনিত সমস্যা ছিল। তার করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাকে করোনা বিধি মেনেই দাফন করতে বলে দেয়া হয়েছে।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার ছেলে ও তিন মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ বাদে আছর তার নামাজে জানাযা হতে পারে বলে জানিয়েছেন তার বড় মেয়ের জামাতা মোহাম্মদ হানিফ।

নাগু কোম্পানির ছোট ভাই, খুরুস্কুল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমানুল হক আমান জানান, গতকাল (বুধবার) রাতেও তিনি ভাইয়ের সাথে কথা বলেছেন। তখন তিনি বলেছিলেন, তার একটু খারাপ লাগছে। সকালে অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।

তিনি জানান, তার ভাই নাগু কোম্পানি নানা শারিরিক জটিলতা ছিল। তিনি সিঙ্গাপুর গিয়েও চিকিৎসা করে এসেছিলেন।

এদিকে পুরো খুরুস্কুলজুড়ে আবু সুলতান ওরফে নাগু কোম্পানির সুনাম ছড়িয়ে আছে। প্রচার আছে, তার মাছ ধরার ট্রলার গুলোর মধ্যে তিনটি ছিল শুধুমাত্র খুরুস্কুলের জনগণের জন্য। ওই তিনটি ট্রলার যে মাছ শিকার করে আনতো তা সাধারণ মানুষের মাঝে বিলিয়ে দেয়া হতো।

প্রসঙ্গত, সমুদ্র সৈকতের ‘সুগন্ধা পয়েন্ট’ নামে পরিচিতি পাওয়া স্থানটি নাগু কোম্পানির মালিকানাধীন সুগন্ধা গেষ্ট হাউসের সুত্র ধরেই প্রতিষ্টা পেয়েছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!