কলাতলীতে স্বামী-স্ত্রীর ওপর সন্ত্রাসি হামলা, স্ত্রীর শ্লীলতাহানি

কলাতলীতে স্বামী-স্ত্রীর ওপর সন্ত্রাসি হামলা, স্ত্রীর শ্লীলতাহানি

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরতলির ঝিলংজা ইউনিয়নের অধীন কলাতলির ঝরঝরি পাড়ায় সন্ত্রাসি হামলার শিকার হয়েছেন ওই এলাকার স্বামী-স্ত্রী। গত ২৬ মে বিকাল ৪টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার মৃত আবুল হাশেমের ছেলে মো. কামাল হোসেন ঝিলংজার কলাতলি ঝরঝরি পাড়ায় জায়গা কিনে বসবাস করে আসছিলেন। প্রতিবেশি বাড়ির মালিক জিন্নাত আলীর ছেলে রায়হানের বসতবাড়ির অপরিস্কার পানি কামালের ভিটার উপর দিয়ে চলাচলের বিষয় নিয়ে কামালের সাথে অনেকবার তার কথা কাটাকাটি হয় এবং ওই পানি বন্ধ করতে রায়হানকে অনেকবার বারণ করলেও তারা কোন কর্ণপাত করেনি। উল্টো প্রায় সময় কামালকে তারা হুমকি দিতে থাকে।

সুত্র মতে, কামাল একা হওয়ায় রায়হান গং তাকে কোন পাত্তাই দেয়নি। বারবার তারা কামালের সাথে ঝগড়া করতে উদ্যত হয়। গতকাল ২৬ মে কামাল বাড়ি থাকা অবস্থায় রায়হানের পরিবারের ব্যবহৃত পানি কামালের উঠানে ভরপুর হয়ে গেলে তিনি রায়হানকে পানির কথা বলে উঠতেই রায়হান, তার বাবা জিন্নাত আলী, মা জন্নাতুল ফেরদৌস, মো. রুবেল, মর্জিনা আক্তারসহ আরও ৪/৫ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি দলবেঁধে কামালের বাড়িতে ঢুকে তাকে বেধড়ক মারধর করে। হামলাকারিরা ধারালো দা দিয়ে কামালের মাথায় কোপ দিতে গেলে তা হাতে লেগে মারাত্মক জখম হয়। ওই সময় কামাল অজ্ঞান হয়ে পড়ে গেলে তার স্ত্রী শারমিন আক্তার এগিয়ে আসেন। হামলাকারিরা তাকেও বেধড়ক মারধর করে ও তার শ্লীলতাহানি ঘটায়।

পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে রায়হান গং চলে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি এজাহার দেয়া হয়েছে এবং সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ ব্যাপারে আহত কামাল বলেন, অহেতুক রায়হান গং আমার উপর চড়াও হয়ে আমাকে মেরে হাড় ভাঙ্গা জখম করেছে। পাশাপাশি আমার স্ত্রীকে বেধড়ক পিটায় এবং শ্লীলতাহানি করে।

তার দাবি, হামলাকারিরা তার স্ত্রীর গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন, একটি এনড্রয়েড মোবাইল সেট এবং ঘরের দামী জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে আহত কামাল প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এদিকে ঘটনা সম্পর্কে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ খাইরুজ্জামান জানান, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!