ঈদগাঁওবাজারে ক্রেতা সেজে ফের অভিযান, ২১ দোকান ও ৩ মার্কেট সীলগালা, দুইজনকে জেল

ঈদগাঁওবাজারে ক্রেতা সেজে ফের অভিযান, ২১ দোকান ও ৩ মার্কেট সীলগালা, দুইজনকে জেল

আনোয়ার হোছাইন, ঈদগাঁও
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

করোনা থেকে জনগণকে সুরক্ষায় সরকারি নির্দেশনা মতে প্রশাসন বারবার সচেতেনতা এবং সতর্ক করার পরও তা অমান্য করায় ক্রেতা সেজে ফের ঈদগাঁও বাজারে অভিযান চালিয়েছেন কক্সবাজার সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মুঃ শাহরিয়ার মুক্তার।

শনিবার (২৩ মে) দুপুরে ঈদগাঁও বাজারের বিভিন্ন পয়েন্টে এই অভিযান চলে।

অভিযান চলাকালিন দোকান খোলা রাখার অপরাধে দুই ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এক সপ্তাহ বিনাশ্রম কারাদণ্ড ঘোষণা করা হয়। এছাড়াও প্রায় সময় প্রশাসনের অনুপস্থিতির সুযোগে মার্কেটের সব দোকান খোলা রেখে বেচাকেনা অব্যাহত রাখায় লাল পতাকা উচিঁয়ে লকডাউনের আওতায় আনা হয় বাজারের বঙ্গ মার্কেট, সৌদিয়া মার্কেট ও কবিরাজ সিটি মার্কেটকে।

অন্যদিকে অভিযানের সংবাদ পেয়ে যে সকল সওদাগর দোকান ফেলে পালিয়ে যান তাদের দোকান গুলোও সীলগালা করে দেয়া হয়।

সীলগালার আওতায় আসা দোকানগুলো হলো সিদ্দিক এন্ড ব্রাদার্স, সানা ফ্যাশন, ভাই ভাই ক্লথ স্টোর, আলম ফ্যাশন, বিনিময় ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, তুষার ডিপার্টমেন্ট, বিছমিল্লাহ স্টোর, সূবর্ণ ডিপার্টমেন্ট, হাজী ডিপার্টমেন্ট স্টোর, কায়সার স্টোর, ফাহিম ডিপার্টমেন্ট স্টোর, রাকিব স্টোর, পরশমনি বিপনী বিতান, ফায়সল গার্মেন্টস, আপন গ্যালারী, ফেমাস কালেকশন, চমক ডিপার্টমেন্ট স্টোর, সিরাজ ক্লথ স্টোর ও অধির বাবুর কসমেটিকস দোকান।

অভিযানকালে উপস্থিত ৫ ক্রেতাকেও ২৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ঈদগাঁওবাজারে ক্রেতা সেজে ফের অভিযান, ২১ দোকান ও ৩ মার্কেট সীলগালা, দুইজনকে জেল

অভিযান পরিচালনাকারি ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুঃ শাহরিয়ার মুক্তার জানান, করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষায় প্রশাসন জেলার সব শপিংমল বন্ধের নির্দেশ জারি করেছে ইতিপূর্বে। বিশেষ করে ঈদগাঁওর কিছু লোভী দোকানদার ও অসচেতন জনগোষ্ঠী এই মরণঘাতি ভাইরাসের তোয়াক্কা না করে ভোররাত থেকে বাজারে বেচাকেনার জন্য জড়ো হন। যা বর্তমান জারিকৃত স্বাস্থ্যবিধির সম্পুর্ণ পরিপন্থী।

এই সংবাদ পেয়ে অব্যাহত অভিযানের অংশ হিসেবে ক্রেতা সেজে দ্বিতীয়বারের মতো পুনরায় অভিযান চালিয়ে ওই মার্কেট, দোকান, ক্রেতা ও আটক দুই দোকানির বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হয়।

তিনি বলেন, যতদিন পর্যন্ত করোনার প্রকোপ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে না আসবে, জনস্বার্থে এ অভিযান চলমান থাকবে।

দীর্ঘ ৩ ঘন্টা এই অভিযান চলে।

এসময় ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (পরিদর্শক) মোঃ আছাদুজ্জামানের নির্দেশে পুলিশের একটি চৌকস দল আদালতকে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেন।

এ অভিযান অব্যাহত থাকায় এলাকার স্বাস্থ্য সচেতন জনগণ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!