‘করোনা জয়’ করে বাড়ি ফিরলেন কক্সবাজার ও নাইক্ষ্যংছড়ির ৯ জন

‘করোনা জয়’ করে বাড়ি ফিরলেন কক্সবাজার ও নাইক্ষ্যংছড়ির ৯ জন

আনছার হোসেন
সম্পাদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার জেলায় মহামারি রোগ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন থাকা আরও ৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়াও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন একজন। এ নিয়ে নতুন করে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা ৯ জন। ইতিপূর্বেও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ জন। এখন পর্যন্ত ১৮ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন।

নতুন করে সুস্থ হওয়াদের মধ্যে কক্সবাজার শহরের দুইজন, চকরিয়ার দুইজন, উখিয়ার একজন, রামুর একজন, টেকনাফের একজন, মহেশখালীর একজন এবং নাইক্ষ্যংছড়ির একজন রয়েছেন।

এদের সুস্থতার ব্যাপারে শুক্রবার (৮ মে) সকালে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে চুড়ান্ত রিপোর্ট তৈরি হয়েছে।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ক্লিনিক্যাল ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ও সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির কক্সবাজার ভিশন ডটকমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, চকরিয়ার দুইজন তাদের বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। টেকনাফের নারী চিকিৎসক চিকিৎসা নিয়েছেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। নাইক্ষ্যংছড়ির একজন চিকিৎসা নেন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। অন্য ৫ জন ছিলেন রামু আইসোলেশন হাসপাতালে।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের করোনা বিষয়ক মুখপাত্র ডা. শাহজাহান নাজির জানান, মিডিয়াতে একটি ভুল রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। রামু আইসোলেশন হাসপাতাল থেকে ৬ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ির ফেরার নিউজটি সম্পূর্ণ সত্য নয়। এখানে একজন বাড়ি ফিরতে পারেননি। ফিরেছেন ৫ জন।

‘করোনা জয়’ করে বাড়ি ফিরলেন কক্সবাজার ও নাইক্ষ্যংছড়ির ৯ জন

তার মতে, ওই ৬ জনের দ্বিতীয়দফা টেষ্টে সবারই রিপোর্ট ছিল নেগেটিভ। কিন্তু গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ মে) তৃতীয়দফা রিপোর্টে ৫ জনের নেগেটিভ আসলেও একজনের আবারও ‘পজিটিভ’ এসেছে। পজিটিভ আসা ওই রোগী বাড়ি ফিরতে পারেননি।

তিনি জানান, সুস্থ হওয়া ৯ জনের মধ্যে চকরিয়ার দুইজন সুস্থ হয়ে বাড়িতেই আছেন। চট্টগ্রামে চিকিৎসা নেয়া টেকনাফ হাসপাতালের চিকিৎসক হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন। রামু আইসোলেশন হাসপাতালের ৫ জন ও নাইক্ষ্যংছড়ি হাসপাতালের একজন আজ শুক্রবার (৮ মে) সকালে ছাড়পত্র পেয়েছেন।

সুত্র মতে, চিকিৎসা নিয়ে ‘করোনা জয়’ করে বাড়ি ফেরা এই ৯ জন হলেন চকরিয়ার সাইফুল ইসলাম ও তার বাবা আবদুল মোতালেব, কক্সবাজার শহরের আবুল কালাম ও শাহআলম, মহেশখালীর বেদারুল আলম, রামুর সালেহ আহমদ, উখিয়ার বানু বিবি, টেকনাফের চিকিৎসক নাঈমা সিফাত ও নাইক্ষ্যংছড়ির জান্নাতুল হাবিবা।

এদিকে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এবং করোনা আইসোলেশন হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া জানান, ৫০ শয্যার এই ডেডিকেটেড হাসপাতাল থেকে শুক্রবার (৮ মে) পয্যন্ত ৯ জন রোগী সুস্থ বাড়ি ফিরেছেন। তাদের মধ্যে সর্বশেষ ৫ জনকে শুক্রবার সকালে বিদায় দেয়া হয়।

তিনি জানান, ওই সময় সুস্থ হওয়া রোগীদের ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানিয়ে বিদায় দেয়া হয় এবং হাসপাতাল থেকে দেয়া নির্দেশনা মেনে চলতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলায় ৭০ জন ও বান্দরবান জেলায় ৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এদের মধ্যে রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের একজন মহিলা রোগী মারা গেছেন। ১৮ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। অন্যরা এখনও চিকিৎসাধীন আছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!