দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ৪ বছর পর সেই ফুটবলারকে পাওয়া গেল জীবিত

দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ৪ বছর পর সেই ফুটবলারকে পাওয়া গেল জীবিত

করোনাভাইরাস আতঙ্কের মাঝেই অবাক কাণ্ড ঘটে গেল জার্মানিতে। চার বছর আগে মৃত ঘোষণা করা এক কঙ্গোলিজ ফুটবলারকে পাওয়া গেছে জীবিত এবং পুরোপুরি সুস্থ অবস্থায়।

তিনি জার্মান ক্লাব শালকের যুব দলের সাবেক খেলোয়াড় হায়ানিক কাম্বা। গত ২০১৬ সালে নিজ দেশে এক সড়ক দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছিল। ফলে তার তৎকালীন ক্লাব ভিএফবি হালসের পক্ষ থেকে মৃতের জন্য সম্মান এবং দোয়াও জানানো হয়েছিল।

কিন্তু জার্মান ট্যাবলয়েড দৈনিক বিল্ডের প্রতিবেদন জানাচ্ছে, ওয়েস্টার্ন জার্মানিতে ডর্টমুন্ডের কাছে গেলসেনকিরচেনে জীবিত পাওয়া গেছে ৩৩ বছর বয়সী কাম্বাকে। তাও পুরোপুরি সুস্থ অবস্থায়।

এ খবর প্রকাশিত হওয়ার এক প্রতারণার অভিযোগে তদন্ত শুরু হয়েছে কাম্বার সাবেক স্ত্রীর বিরুদ্ধে। কেননা তিনি মৃত্যুর সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার জীবন বীমা থেকে ছয় অঙ্কের অর্থ উত্তোলন করে ফেলেছেন।

এমনকি এ তদন্তে সাক্ষী হওয়ার জন্যও প্রস্তুত কাম্বা। জানিয়েছেন নিজের স্ত্রীর এ গর্হিত কাজের ব্যাপারে কোন ধারণাই ছিল না তার।

কাম্বার স্ত্রীর বিরুদ্ধে শুরু হওয়া এ তদন্তের কৌঁসুলি আনেত্তে মিল্ক বলেছেন, ‘অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। যদিও সে এটা স্বীকার করছে না। প্রক্রিয়া এখনও চলছে। কাম্বা জানিয়েছে ২০১৬ এর জানুয়ারিতে তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায় এবং তখন তার কাছ থেকে কাগজপত্র, টাকা এবং মোবাইলও নিয়ে নেয়।’

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে কোন দলিল বা কাগজপত্র ছাড়াই কঙ্গোতে তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে। তবে তিনি দুই বছর আগে জার্মানিতে ফিরেছেন এবং একটি এনার্জি কোম্পানিতে কেমিক্যাল টেকনিশিয়ান হিসেবে কাজ শুরু করেছেন।

এদিকে ১৯ বছর আগে জার্মানি থেকে কঙ্গোতে পালিয়ে গিয়েছিল কাম্বার পরিবার। তবে শালকে ফুটবল দলের যুব খেলোয়াড় হওয়ায় জার্মানিতে থাকার অনুমতি ছিল কাম্বার। জার্মানির নিচের সারির বেশ কয়েকটি ক্লাবের হয়েই খেলেছেন তিনি।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!