লকডাউন শিথিলে ভারতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড, ২৪ ঘন্টায় ১৯৫ মৃত্যু

ভারতে একদিনে ‘করোনা’ আক্রান্তের নতুন রেকর্ড, বাড়ল নিষেধাজ্ঞা

ভারতে লকডাউন শিথিলের পর গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৯৫ জন মারা গেছেন করোনায়। এছাড়া প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণের ঘটনাও ঘটেছে সোমবার; দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৩ হাজার ৯০০ জন।

দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, করোনাভাইরাসে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর একদিনে সর্বোচ্চ রেকর্ড হয়েছে ভারতে। করোনায় আক্রান্ত ১৯৫ জন রোগী গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন; এ নিয়ে মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫৬৮ জনে। নতুন ৩ হাজার ৯০০ জনকে নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৪৬ হাজার ৪৩৩।

মঙ্গলবার সকালের দিকে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, দেশে এখন পর্যন্ত করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৮২ হাজার ৭৯২ জনের। তাদের মধ্যে করোনা পজিটিভ হয়েছেন ৪৬ হাজার ৪৩৩। আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ হাজার ৭২৭ জন। সুস্থ হওয়ার হার ২৭ দশমিক ৪ শতাংশ।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে গত ২৫ মার্চ ভারতে প্রথম দফায় লকডাউন জারি করা হয়। এই লকডাউনের মেয়াদ এখন পর্যন্ত দুই দফায় বৃদ্ধি করা হয়েছে।

রোববার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় লকডাউনের বিধি-নিষেধ শিথিলের পাশাপাশি গ্রিন জোন এলাকার অনেক ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও কল-কারখানা খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়। তবে বেশ কিছু নতুন শর্তজুড়ে দিয়ে এসব প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেয়া হয়। দেশটিতে রোববারও করোনায় মারা গেছেন অন্তত ৮৩ জন এবং আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ হাজার ৫৭৩ জন।

দীর্ঘ সময়ের লকডাউনের কারণে অচলাবস্থা তৈরি হওয়ায় দেশটির ১৪ কোটি অভিবাসী শ্রমিক কর্মহীন হয়ে ভয়াবহ সঙ্কটের মুখে পড়েছেন। দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, ১৩০ কোটি মানুষের এই দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে লকডাউনের বিকল্প নেই। লকডাউন কার্যকর না থাকলে করোনায় দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারে ভেঙে পড়ার শঙ্কা রয়েছে; যা ইতোমধ্যে দেশের চিকিৎসাব্যবস্থার প্রতি ভয়াবহ চাপ তৈরি করেছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!