পেকুয়ার ‘চালবাজি’ তদন্ত করতে আসছেন ৩ সদস্যের কমিটি

পেকুয়ার ‘চালবাজি’ তদন্ত করতে আসছেন ৩ সদস্যের কমিটি

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের বহুল আলোচিত পেকুয়া উপজেলার ত্রাণের ১৫ টন চাল আত্মসাতের ঘটনা তদন্ত করতে সোমবার (৪ এপ্রিল) উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি পেকুয়ায় যাচ্ছেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগ, চট্টগ্রামের পরিচালক (জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তীর নেতৃত্বে গঠিত ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি এই তদন্ত কাজ সোমবার থেকে শুরু করবেন। কমিটির অন্য ২ জন সদস্য হলেন কক্সবাজার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক (উপসচিব) শ্রাবস্তী রায় ও কক্সবাজার জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা মোঃ মাহবুবুল আলম।

বিষয়টি তদন্ত কমিটির প্রধান স্থানীয় সরকার বিভাগ, চট্টগ্রামের পরিচালক (জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তী কক্সবাজার ভিশন ডটকমকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সংশ্লিষ্ট সকলকে সোমবার তদন্তকালীন প্রয়োজনীয় তথ্য উপাত্ত নিয়ে পেকুয়া উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে উপস্থিত থাকার জন্য নোটিশ দেয়া হয়েছে। তিনি নিজে সোমবার (৪ মে) সকালে চট্টগ্রাম থেকে সড়কপথে পেকুয়ায় আসবেন বলে জানিয়েছেন। কমিটির অন্য ২ জন্য সদস্য কক্সবাজার জেলা সদর থেকে সকালে পেকুয়ায় যাবেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান ও স্থানীয় সরকার বিভাগ, চট্টগ্রামের পরিচালক (জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তী জানান, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে সুপারিশ আকারে বিস্তারিত তদন্ত প্রতিবেদন স্থানীয় সরকার বিভাগে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির প্রধান স্থানীয় সরকার বিভাগ, চট্টগ্রামের পরিচালক (জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তী বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের ৮ম ব্যাচের কর্মকর্তা। তিনি সহকারী কমিশনার থাকাকালিন কক্সবাজার জেলা প্রশাসনে চাকুরি করেছেন।

প্রসঙ্গত, পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন থেকে গত ৩১ মার্চ টৈটং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর নামে বরাদ্দকৃত ১৫ টন ত্রাণের চাল আত্মসাতের অভিযোগে এনে গত ২৮ অক্টোবর তাকে একমাত্র আসামি করে পেকুয়ার পিআইও বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। পরদিন স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে এক আদেশে জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীকে চেয়ারম্যানের পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

পরে গত ৩০ এপ্রিল একই ঘটনার রেশ ধরে পেকুয়ার ইউএনও সাঈকা সাহাদাতকে বদলী করা হয়। আবার ১ মে পেকুয়ার ইউএনও সাঈকা সাহাদাতের ৩০ এপ্রিলের বদলী আদেশ স্থগিত করা হয়।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!