দেশের প্রথম ‘ভ্রাম্যমান হাসপাতাল’ যাত্রা করল কক্সবাজারে

দেশের প্রথম ‘ভ্রাম্যমান হাসপাতাল’ যাত্রা করল কক্সবাজারে

মহিউদ্দিন মাহী
প্রধান প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

পৃথিবীজুড়ে এখন থাবা পড়েছে ‘কোভিট ১৯’ করোনাভাইরাসের। এই সংক্রমণ রোগের চিকিৎসায় বর্তমানে কোন ওষুধ না থাকলেও চিকিৎসা সেবা চালিয়ে নিচ্ছেন চিকিৎসকরা। মহামারী এই রোগ ছড়িয়ে পড়েছে পর্যটন রাজধানী কক্সবাজারেও। এই সময়ে চিকিৎসা নিতে কষ্টে পড়ে যাওয়া মানুষদের কথা চিন্তা করে কক্সবাজারেই উদ্বোধন হয়েছে একটি ‘ভ্রাম্যমান হাসপাতাল’।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে শনিবার (২ মে) সকাল ১১টায় শহরের পাশাপাশি ইউনিয়ন খুরুশকুলে এই ভ্রাম্যমান হাসপাতাল উদ্বোধন হয়।

বিশেষায়িত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত একটি গাড়িতে সম্পূর্ণ একটি ক্ষুদ্র হাসপাতাল হিসেবে সাজানো হয়েছে। যেখানে চিকিৎসা সেবায় সব ধরণের সরঞ্জাম রয়েছে। ডাক্তাররা শুধু রোগীদের চিকিৎসা দিবেন তা নয়, প্রত্যেক রোগীকে রোগ অনুযায়ী সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ওষুধ দেয়া হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসার।

তিনি জানান, ভ্রাম্যমান হাসপাতালটি শহর থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষকে চিকিৎসাসেবা দেবে। প্রাথমিক ভাবে সব ধরণের রোগের চিকিৎসা দেয়া হবে এই হাসপাতালে।

এই ভ্রাম্যমান হাসপাতাল উদ্বোধন করেন কক্সবাজারেরই সন্তান, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ। তিনি কক্সবাজার জেলার ত্রাণ কার্যক্রমের সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্বও পালন করছেন।

সাধারণ মানুষের চিকিৎসা সেবায় উদ্বোধন হওয়া ভ্রাম্যমান হাসপাতালের উদ্যোক্তাদের একজন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমদ জয়। তিনি জানান, বর্তমান সময়ে করোনাভাইরাসের কারণে পুরো কক্সবাজার লকডাউন রয়েছে। সাধারণ মানুষ চিকিৎসা সেবায় গাড়ি নিয়ে হাসপাতালে যেতে চাইলেও গাড়ি না থাকায় যেতে পারেন না। তাই তাদের কথা চিন্তা করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে এই ভ্রাম্যমান হাসপাতাল তৈরি করা হয়।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের আন্তরিকতায় এইটুকু সম্ভব হয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

ইশতিয়াক আহমদ জানান, উদ্বোধন হওয়া এই হাসপাতালে অক্সিজেন, নেভোলেইজার এবং দুইজন ডাক্তার বসার মতো ব্যবস্থা রয়েছে। এই হাসপাতালে ৪ জন ডাক্তার নিয়োজিত থাকবেন।

তিনি জানান, জেলার ৭১ ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সাধারণ মানুষদের চিকিৎসা দিতে দ্বোরগোড়ায় পৌঁছবে এই ‘ভ্রাম্যমান হাসপাতাল’।

তিনি মনে করেন, বিশেষায়িত ক্ষুদ্র এই হাসপাতাল চালু হওয়ায় সাধারণ মানুষ আর চিকিৎসা সেবা নিয়ে বিড়ম্বনায় ভুগবেন না। সহজেই ওই গাড়ির মাধ্যমে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!