আইসোলেশন থেকে পালানো যুবক ফিরে এলেন হাসপাতালে

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ২১ ডাক্তার-নার্স কোয়ারেন্টাইনে

আনছার হোসেন
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের করোনা আইসোলেশনে ভর্তি হওয়ার এক ঘন্টার মধ্যেই পালিয়ে যাওয়া যুবক আবারও ফিরে এসেছেন। দীর্ঘ প্রায় দুই ঘন্টা পর ফিরে আসা ওই যুবক চিকিৎসকদের জানিয়েছেন, তিনি জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। তিনি নিজেই হাসপাতালে ফিরে এসেছেন।

যদিও অন্য একটি সুত্র দাবি করেছে, পালানোর পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে জানালে পুলিশই তাকে আবার জেলা সদর হাসপাতালে ফিরিয়ে আনে।

ইতোপূর্বে শুক্রবার (১০ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জ্বর, সর্দি ও কাশিসহ করোনা ভাইরাসের লক্ষণ নিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করেন। পরে বিকেল ৩টার দিকে ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, ওই রোগী তার সিটে নেই। পালিয়ে গেছেন।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ক্লিনিক্যাল ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডা. মো. শাহজাহান নাজির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২২ বছর বয়সী ওই যুবক কক্সবাজার শহরের টেকপাড়ার বাসিন্দা। তিনি টেকপাড়া এলাকা হিন্দু পাড়ায় একটি বিল্ডিংয়ে ভাড়া থাকেন তার পরিবার। তার নাম-পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেলেও তা সামাজিক দায়বদ্ধতার কারণে প্রকাশ করা হলো না।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দুপুরে জানিয়েছিলেন, ওই যুবক শুক্রবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জেলা সদর হাসপাতালে আসেন। করোনাভাইরাসের প্রাথমিক লক্ষণ জ্বর, সর্দি ও কাশি থাকায় তাকে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি দেয়া হয়। কিন্তু বিকেল ৩টার দিকে ওই রোগী হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই চিকিৎসক জানান, পালিয়ে যাওয়া ওই যুবক ইতালিফেরত এক বন্ধুর সংস্পর্শে এসেছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, ওই বন্ধুর মাধ্যমে তিনি আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন। তবে পরীক্ষা না করা পর্যন্ত কিছু বলা সম্ভব নয়। তার করোনা পরীক্ষার জন্য স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়েছে।

এদিকে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ওই চিকিৎসক জানান, পালিয়ে যাওয়া ওই যুবককে ধরা হয়েছে। তার মাসহ তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. মহিউদ্দিন জানান, একজন ২২ বছর বয়সী রোগী আইসোলেশন থেকে পালিয়ে গেছে। কমবয়সী হওয়ায় হয়তো ভয় পেয়ে এটা করেছে।

তিনি জানান, ওই রোগী ফিরিয়ে আনতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মো. শাহজাহান নাজির জানান, ওই রোগী তার মাকে নিয়ে হাসপাতালে ফিরে এসেছেন। তাকে ওয়ার্ডে ভর্তি রাখা হয়েছে। রোগীর স্যাম্পল সংগ্রহ করে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

অন্য একটি সুত্র দাবি করছেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে জানানোর পর কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের একটি দল ওই যুবকের বাড়িতে যান। বাড়ির কাছাকাছি গিয়ে ওই যুবকের মোবাইলে ফোন দেয়া হলে তিনি পুলিশকে জানান, তিনি হাসপাতালে ফিরে আসছেন।

পরে পুলিশ হাসপাতালে এসে দেখতে পায়, ওই যুবক হাসপাতালে ফিরে এসেছেন।

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মো. খাইরুজ্জামান জানান, পালিয়ে যাওয়া যুবককে পুলিশ ফিরিয়ে এনেছে। তাকে হাসপাতালে রাখা হয়েছে। তবে এখনও পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।