প্রেমিকাকে ডেকে এনে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণ করলো প্রেমিক!

পরকীয়া প্রেমিক ও তার বন্ধুর ধর্ষণে গৃহবধূ অচেতন

গাজীপুর মহানগরীতে বিয়ের কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে এনে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রেমিকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ক্ষোভে ও লজ্জায় আত্মহত্যার চেষ্টায় চেলায় প্রেমিকা।

গত মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে গাজীপুর মহানগরীর গাছা থানার কামারজুরি এলাকায়।

গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ১৫ বছরের ওই কিশোরী প্রেমিকাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে প্রেমিক রাসেল হোসেন বাবুসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ ও স্যাভলন খাইয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা করেছেন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ওই কিশোরী পরিবারের সঙ্গে কামারজুরি এলাকায় ভাড়া থাকে। তারা-বাবা-মা গার্মেন্টে চাকরি করেন। ওই কিশোরী স্থানীয় একটি স্কুলের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী। একই এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে রাসেল হোসেন ওরফে বাবুর (২৫) সঙ্গে দুই বছর আগে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিছুদিন যাবৎ বিয়ের জন্য চাপ দিলে মঙ্গলবার বিকেলে বাবু তাকে (কিশোরীকে) বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে একটি নির্জন স্থানে বাবুসহ ৫ বন্ধু মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে স্যাভলন খাইয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় এবং সন্ধ্যায় সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাকে বাসার সামনে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। স্বজনরা দ্রুত ওই কিশোরীকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

গাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইমসাইল হোসেন জানান, প্রেমের সুযোগ নিয়ে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রেমিক বাবু ওই কিশোরীকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে আসছিল। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে বুধবার রাতে মামলা করেন। বাবুসহ অন্য ধর্ষকদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।