টেকনাফ গেইম রিজার্ভের ১৬ পয়েন্টে আগুন, বনে সন্ত্রাসিদের নাশকতা!

টেকনাফ গেইম রিজার্ভের ১৬ পয়েন্টে আগুন, বনে সন্ত্রাসিদের নাশকতা!

নুরুল হক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে গেইম রিজার্ভ ফরেষ্ট বনের অন্তত ১৬টি স্থানে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসী বাহিনী। তবে হঠাৎ করে বনের বিশাল অংশে এক সাথে আগুন লাগিয়ে নাশকতার চেষ্টা করছে।

মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) বিকালে টেকনাফ পাহাড়ের কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে অন্তত ১৬টি স্পটে আগুনে জ্বলতে থাকে পাহাড়ের গাছপালায়। এই খবরে বন বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। কিন্তু সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসায় বন বিভাগের লোকজন ছাড়া অন্যরা পৌছঁতে পারেনি।

এ ঘটনায় বন বিভাগের প্রায় ৮ থেকে ১০ হেক্টর বন পুড়ে ধ্বংস হয়ে গেলেও কেউ হতাহত হয়নি বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।

এদিকে গত সোমবার টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যং পাহাড়ের জাদিমোড়া নামক স্থানে আগুনের শিখা দেখতে পায় স্থানীয়রা। ওইদিন পার্শ্ববর্তী ভিলেজাররা আগুন নেভানার চেষ্টা করতে গেলে পাহাড়ে অবস্থানকারি একদল সন্ত্রাসি তাদের বাধা দেয় বলে জানা যায়।

বন বিভাগের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বন বিভাগের লোকজন যখন মঙ্গলবার বিকালে আগুন নেভাতে যান তখন পাহাড়ের ভেতর থেকে বাঁশি বাজিয়ে উল্টা ধমক দেয়ার চেষ্ঠা করে একদল সন্ত্রাসি। পরে বন বিভাগের লোক পরিচয় পেয়ে তারা সটকে পড়ে।

মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) রাতে টেকনাফ উপকূলীয় বন অফিসে কথা হয় বন বিভাগের টেকনাফ রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক আহমদের সাথে।

তিনি বলেন, এ বনে এর আগেও কয়েক দফায় আগুন দেয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, কয়েকটি সন্ত্রাসি গ্রুপ এখানে অবস্থান করছে। তারা আধিপত্য বিস্তারের জন্য এ ধরণের নাশকতা করতে পারে।

টেকনাফ গেইম রিজার্ভের ১৬ পয়েন্টে আগুন, বনে সন্ত্রাসিদের নাশকতা!

বনের আগুন এখন প্রায় ৯০ ভাগ নিয়ন্ত্রণে এসেছে দাবি করে রেঞ্জ কর্মকর্তা বলেন, বনের একটি টিলায় আগুন নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজন হলে হেলিকপ্টার ব্যবহার করে আগুন নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

ফায়ার সার্ভিস টেকনাফ স্টেশন কর্মকর্তা মুকুল কুমার নাথ বলেন, পাহাড়ে আগুন লাগার খবরে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গাড়ী ও টিম পৌঁছে যায়। তারা আগুন নেভানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়া আগুন নিয়ন্ত্রণ করা গেলেও পাহাড়ে আগুন নেভাতে বেগ পেতে হচ্ছে।

তবে রাত ৯টা পযর্ন্ত কয়েকটি স্থানের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। অন্যান্য জায়গায় আগুন জ্বলছে। বাকি কয়েকটি পয়েন্টে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা এবং আশপাশের জনবসতিতে যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে চেষ্টাই করা হচ্ছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, বনে কারা আগুন দিয়েছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হঠাৎ করে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় লোকালয়ের কিছু অঞ্চল ঝুঁকিতে ছিল। তবে পাহাড়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা চলছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!