রোগীর রুমের ভেতরে-বাইরে ‘করোনা’র অস্তিত্ব, ছড়াচ্ছে বাতাসেও

রোগীর রুমের ভেতরে-বাইরে ‘করোনা’র অস্তিত্ব, ছড়াচ্ছে বাতাসেও

প্রাণঘাতী নতুন করোনাভাইরাস বাতাসের মাধ্যমে ছড়াতে পারে এবং কয়েক ঘণ্টা ধরেই সংক্রামক হিসেবে টিকে থাকতে পারে। শুধু তাই নয়, রোগী সুস্থ হয়ে চলে যাওয়ার পরও হাসপাতাল কক্ষের ভেতরে এবং বাইরে বাতাসে এই ভাইরাস বেঁচে থাকে। মার্কিন বিজ্ঞানীদের এক গবেষণায় করোনাভাইরাসের বিস্তার এবং টিকে থাকা নিয়ে নতুন এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞানীরা তাদের গবেষণায় হাসপাতালে রোগীর কক্ষের বাইরের করিডরেও করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন; যেখানে হাসপাতালের কর্মীরা আসা-যাওয়া করেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব নেব্রাসকার গবেষকরা এই গবেষণা করেছেন। তারা বলেছেন, স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষামূলক পোশাকের গুরুত্ব এই গবেষণায় উঠে এসেছে।

উচ্চ সংক্রমিত এই ভাইরাসের কণা শুধুমাত্র হাচিকাশির মাধ্যমেই ছড়ায় না। বরং বাতাসের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে বলে গবেষকরা জানিয়েছেন। একেবারে নতুন এই ভাইরাসকে বোঝার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়া এই করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮ লাখের বেশি মানুষ। এছাড়া মারা গেছেন ৩৯ হাজারের বেশি।

ইউনিভার্সিটি অব নেব্রাসকার গবেষকদের এই গবেষণার ফল এখনও কোনও বিজ্ঞানবিয়ষক সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়নি। করোনায় আক্রান্ত ১১ জন রোগীর আইসোলেশন কক্ষ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে গবেষণাটি পরিচালনা করা হয়। এতে রোগী হাসপাতাল ছাড়ার পর তার কক্ষের ভেতরে এবং বাইরে ভাইরাল কণাগুলোর অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন গবেষকরা।

তারা বলেছেন, নতুন গবেষণায় যে তথ্য পাওয়া গেছে- সেই অনুযায়ী কোনও ব্যক্তি করোনারোগীর প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে না এলেও সংক্রমিত হতে পারেন। ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী পরিধানের বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়া উচিত বলে পরামর্শ দিয়েছেন মার্কিন এই গবেষকরা।

নেব্রাসকা ইউনিভার্সিটির সংক্রামক ব্যাধি বিশেষজ্ঞ ও গবেষক দলের প্রধান জেমস ললার বলেছেন, করোনাভাইরাস নিয়ে আমাদের সন্দেহকে আরও জোরাল করেছে এই গবেষণা। যে কারণে আমরা বলছি, রোগীকে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে না এমন কক্ষে রেখে চিকিৎসা দিতে হবে। এমনকি রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেলেও এটি করতে হবে।

এর আগেও বেশ কয়েকটি গবেষণায় প্রাণঘাতী এই ভাইরাস বাতাসে এবং মানববর্জ্যের মাধ্যমে ছড়াতে পারে বলে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়েছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!