যে কারণে নিমপাতা খাবেন এই সময়ে

সার্স বা ইবোলার মতো নানা ধরণের প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিল বহু জায়গায়। করোনাভাইরাস তার মধ্যে সর্বশেষ। গেটা দুনিয়াজুড়ে বিশ্বব্যাপী মহামারির আকারে ছড়িয়ে পড়েছে এই মারণ ভাইরাস।

করোনা প্রতিরোধে বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এছাড়া হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত মুছতে বলা হয়েছে। এই অবস্থায় নিমই জীবাণুমুক্ত করার বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া পক্স-হাম-টাইফয়েড এই সময়টায় বেশ জাঁকিয়ে বসে। তাই এখন থেকে নিমের ব্যবহার করুন প্রতিদিন।

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করা থেকে ত্বকের দাগ ছোপ দূর করা- এসবই করে থাকে নিমপাতা। কেটে গেলে বা পুড়ে গেলে ক্ষত স্থানে নিম পাতার রস লাগান; গায়ের দুর্গন্ধ এবং ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে নিমপাতার রস খুবই কার্যকরী।

প্রকৃতিতে চলছে বসন্তকাল। ঋতু বদলের এই সময়টায় অসুখ ছড়ায় সবচেয়ে বেশি। আর তাই এই সময়ে শরীরের খেয়াল রাখা খুব জরুরি।

এককাপ নিমপাতায় ক্যালোরি থাকে ৩৫ গ্রাম। ফলে প্রতিদিন এককাপ নিমপাতা খেলে ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকবে। এছাড়াও যাদের সুগার নেই, তাদের ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা করা যায়।

দাঁত ও মাড়ির যেকোনো ইনফেকশন থেকে দূরে রাখে। যে কারণে নিমের দাঁতন ব্যবহার করা হয়।

চুল পড়া থেকে খুশকির সমস্যায় নিম শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। শ্যাম্পুর পর নিমপাতা দেয়া পানিও ব্যবহার করতে পারেন।

গ্যাস বা বদহজমের দীর্ঘদিনের সমস্যায় নিম খুব ভালো কাজ দেয়। তাই এধরনের সমস্যা সমাধানে নিমপাতা বেছে নিন।

এই সময় মশার প্রকোপ বাড়ে। তাই বাড়িতে নিম তেল ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গে প্রতিদিন নিমপাতা খান। মশা কম কামড়াবে। ম্যালেরিয়া থেকে দূরে থাকবেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!