মুক্তিযোদ্ধা মোজাহের মিয়ার ইন্তেকাল, দুই জানাযা শেষে দাফন

মুক্তিযোদ্ধা মোজাহের মিয়ার ইন্তেকাল, দুই জানাযা শেষে দাফন

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকার বাসিন্দা, মুক্তিযোদ্ধা মোজাহের মিয়াকে বুধবার (১৮ মার্চ) বাদে যোহর সার্কিট হাউজ সংলগ্ন বড় কবরস্থানে তাঁর বাবা ও মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়েছে। দ্বিতীয় জানাজা নামাজের পর তাঁকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। ইতোপূর্বে কক্সবাজার জেলগেট এলাকায় তাঁর প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

৯ নাম্বার সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধা মোজাহের মিয়া ৮৭ বছর বয়সে মঙ্গলবার দিনগত রাত ১২টায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি … রাজেউন)। তিনি কক্সবাজার শহরের বাহারছড়ার বাসিন্দা মরহুম আলী চান মিয়ার ছেলে। তবে তিনি দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছর ধরে বাহারছড়া ও মৃত্যুর আগমুহুর্ত পর্যন্ত কলাতলীস্থ জেলগেট এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন।

এই মুক্তিযোদ্ধার জানাজায় অংশ নেন শত শত মানুষ। আত্মীয়-স্বজন ছাড়াও আওয়ামী লীগের কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান, পৌর কাউন্সিলর ও বাহারছড়া নবজাগরণ সমিতির সভাপতি নুর মোহাম্মদ মাঝু, কক্সবাজার রূপালী ব্যাংক সদন শাখার ম্যানেজার ফারুকী আজম নোমান, জীপ, মাইক্রো-কার শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি মুহাম্মদ শাহজাহান বাপ্পী, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন কক্সবাজার জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইউ বাহাদুর, বাহারছড়া নবজাগরণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক রানা, মাস্টার আবুল হোসেন, যুবনেতা আবছার কামালসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ অংশ নেন।

এদিকে মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মোজাহের মিয়া মৃত্যুকালে ৪ ছেলে ও ৬ মেয়েসহ অনেক গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

তিনি বাহারছড়া নবজাগরণ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের (১৬৭৪) প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন।

অপরদিকে মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মোজাহের মিয়ার মেঝো ছেলে রুপালী ব্যাংকের কর্মচারী (ড্রাইভার) কামাল উদ্দিন সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!