টিকাদান ক্যাম্পেইন শুরু হচ্ছে ১৮ মার্চ

আগামীদিনের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাধারি মা তৈরি করতেই হাম রুবেলা টিকা!

টিকাদান ক্যাম্পেইন শুরু হচ্ছে ১৮ মার্চ

আনছার হোসেন
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

সারাদেশের মতো কক্সবাজারেও আগামি ১৮ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে হাম রুবেলা টিকাদান ক্যাম্পেইন। এই কর্মসূচি আগামি ১১ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। এবারের কর্মসূচিতে কক্সবাজার জেলার ১০ বছরের কম বয়সি ৭ লাখ ৯০ হাজার ৫৯২ শিশুকে হাম রুবেলা টিকা দেয়া হবে।

রোববার (১৫ মার্চ) বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়ে বলা হয়েছে, ‘আগামীদিনের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাধারি মা নিশ্চিত করতেই হাম রুবেলা টিকাদান কার্যক্রম করে যাচ্ছে সরকার।’

সংবাদ সম্মেলনে কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডা. মো. মাহবুবুর রহমান এসব তথ্য তুলে ধরেন।

ডা. মাহবুব বলেন, হাম রুবেলা ভাইরাসজনিত সংক্রামক রোগ হলেও এটি মারাত্মক কোন রোগ নয়। তবে এই রোগে আক্রান্ত রোগীর শারিরিক জটিলতা মারাত্মক।

তিনি বলেন, হাম রুবেলা টিকা শিশুদের শরীরে এন্টি-বডি তৈরি করে। এতে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

তার মতে, আগামী দিনে সে সকল নারী মা হবেন তাদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাধারি করতেই এই টিকা দেয়া হচ্ছে। যারা এই রোগে আক্রান্ত হন তাদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। এই রোগে আক্রান্ত কোন মহিলা যদি গর্ভধারণ করে তার অপূর্ণাঙ্গ বাচ্চা প্রসবের আশংকা থেকে যায়। হাম রুবেলা টিকা দিলে সেই আশংকা শেষ হয়ে যায়।

টিকাটির গুণগত মান নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে সিভিল সার্জন বলেন, আমাদের শিশুরা যে টিকা পাচ্ছে, একই টিকা পাচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শিশুও। সারাবিশে^ এই টিকাটির গুণগত কোন পার্থক্য নেই।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সারাদেশের মতো কক্সবাজারেও দুইটি পর্বে হাম রুবেলা টিকাদান ক্যাম্পেইন করা হবে। প্রথম পর্বে ১৮ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে সর্বোচ্চ চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে এই টিকা দেয়া হবে। পরের পর্বে আগামি ২৮ মার্চ থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে হাম রুবেলা টিকা দেয়া হবে।

তথ্য মতে, জেলার দুই হাজার ৩৩৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে টার্গেট করে ৪ লাখ ৬০ হাজার ৭৫৫ শিশুকে এই টিকা দেয়া হবে। দ্বিতীয় পর্বে ৩৪৭টি টিকাদান কেন্দ্র ও ৯টি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আরও ৩ লাখ ২৯ হাজার ৮৩৭ শিশুকে হাম রুবেলা টিকা দেয়ার টার্গেট ধরা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনের তথ্য মতে, প্রতি টিমে ৫ জন করে ৩৬৫টি টিম প্রতিদিন কাজ করবে।

অনুষ্ঠানটিতে জানানো হয়, সাধারণত ছকবদ্ধ টিকাদান কর্মসূচিতে (ইপিআই) প্রতিটি শিশুকে দুইবার হাম রুবেলার টিকা দেয়া হয়। তারপরও হাম রুবেলার রোগী বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার নতুন করে অতিরিক্ত একটি ডোজ দেয়ার কর্মসূচি নিয়েছে সরকার।

এবার সারাদেশে ৩ কোটি ২৪ লাখ শিশুকে হাম রুবেলা টিকা দেয়া হবে। আগামি ২০২৩ সালের মধ্যে দেশকে হাম রুবেলা মুক্ত করার টার্গেট নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।

সংবাদ সম্মেলনে সিভিল সার্জন ছাড়াও বক্তব্য রাখেন ডা. এসএম জামশেদুর রহমান, ডা. সৌমেন বড়ুয়া ও বিশ্ব খাদ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রতিনিধি ডা. সোরাইয়া আকতার।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!