মার্কিন সেনারা ‘করোনা’ ছড়িয়েছে!

মার্কিন সেনারা উহানে করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) ছড়িয়েছে বলে দাবি করছে চীনের এক ঊর্ধ্বতন কূটনৈতিক। ৯/১১ ষড়যন্ত্র তত্ত্ব দিয়ে তারা এ ভাইরাসটিকে উহানের ভাইরাসের নাম দিয়েছে বলে আখ্যা দিয়েছেন ওই কর্মকর্তা। তার দাবি ভাইরাসটি উহানে সৃষ্টি হয়নি।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) গভীর রাতে টুইট বার্তায় এমনই আশংকার কথা জানালেন চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান।

টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ইউএস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনে (সিডিসি) কখন ভাইরাসটি ধরা পড়ে। কখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রোগীর সংখ্যা শূন্যে নামবে? কতজন আক্রান্ত হয়েছে? কোন কোন হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা হচ্ছে? মনে হয় যুক্তরাষ্ট্রের সেনারাই উহানে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে। স্বচ্ছতা থাকা উচিত আপনাদের তথ্য সবার সম্মুখে আনুন। তাদের ব্যাখ্যা আমাদের দেওয়া উচিত।

টুইট বার্তায় ঝাও সিডিসির পরিচালক রবার্ট রেডফিল্ডের একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন। ওই ভিডিওতে রেডফিল্ড জানান, ইনফ্লুয়েঞ্জা থেকে প্রতিবছর মার্কিন নাগরিকরা মারা যায়। পরে যুক্তরাষ্ট্র বুঝতে পারে মৃত্যুর কারণ ইনফ্লুয়েঞ্জা নয়। তারা কভিড-১৯ ভাইরাসে মারা যাচ্ছে। তবে মার্কিন নাগরিকরা কখন মারা গেছে ভিডিওটিতে তা জানানো হয়নি।

কিন্তু ঝাও ক্রমবর্ধমান ষডযন্ত্র তত্ত্বের সমর্থনে তার মন্তব্যে ইঙ্গিত করেছেন যে করোনাভাইরাসটি মূল চীনের হুবেই প্রদেশে উদ্ভূত হযনি। তবে এই দাবির জন্য তিনি আর কোনো প্রমাণ দেননি।

চীনে করোনার রোগী কমা ও বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় এটির উৎপত্তিস্থল উহানকে মানতে নারাজ বেইজিং।

মার্কিন বাহিনীর প্রায় শখানেক অ্যাথলেট ২০১৯ সালের অক্টোবরে মিলিটারি ওযার্ল্ড গেমসের জন্য উহানে ছিলেন। আর ওই সময় তাদের দ্বারা ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

রেডফিল্ডর ভিডিওটি চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম সিসিটিভিতেও প্রকাশিত করা হয়েছে।

এদিকে শুক্রবার ঝাওযরে সহকর্মী পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আরেক মুখপাত্র গেঞ্জ শুযাং জানান, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে ভাইরাসটির উৎস সম্পর্কে বিভিন্ন মতামত রয়েছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!