কক্সবাজারের ৩০ আবাসিক হোটেলের বিরুদ্ধে মানবপাচার মামলা!

কক্সবাজারের ৩০ আবাসিক হোটেলের বিরুদ্ধে মানবপাচার মামলা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারে ২০১৯ সালে মানব পাচারে মামলা হয়েছে ৪৬টি। সেখানে মানবপাচার, পতিতাবৃত্তিসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে কক্সবাজার শহরের ৩০টির মতো আবাসিক হোটেল ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। অপরাধ কর্মের বিরুদ্ধে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

‘মানবপাচার প্রতিরোধে করণীয়’ শীর্ষক এক বেতার সংলাপে এই তথ্য জানিয়েছেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন। বাংলাদেশ বেতারের আয়োজনে বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) বিকালে জেলা ইপিআই সেন্টার কনফারেন্স হলে ওই সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

মুহাম্মদ আলী জিন্নাতের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ওই বেতার সংলাপে পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনায় পুলিশ সুপার বলেন, মানব পাচারের বিষয়ে আমরা কঠোর। মাদক, মানবপাচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হচ্ছে।
তবে, ২০১২ সাল থেকে এ পর্যন্ত একটি মানবপাচার মামলাও আদালতে নিষ্পত্তি হয়নি।

তিনি বলেন, মানবপাচার প্রতিরোধে ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।

পুলিশ সুপার মানবপাচার ও রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে বলতে গিয়ে বলেন, রোহিঙ্গারা আমাদের মতোই কথা বলে। পোষাক পরিচ্ছদও অনেকটা আমাদের মতো। অনেক সময় তাদের চিহ্নিত করা কঠিন হয়ে যায়। তাই চেকপোস্টে ফাঁকি দিয়ে পার পেয়ে যায়।

তাঁর মতে, মিথ্যা প্রলোভনে ফেলে এক শ্রেণীর দালাল সরল-সহজ মানুষকে পাচার করে নিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন দেশে।

তিনি বলেন, দালালদের তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে সহযোগিতা করুন।

দালালদের মাধ্যমে বিদেশে না যেতে ব্যাপক জনমত গড়ে তোলারও আহ্বান জানান পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন।

বেতার সংলাপে বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর একেএম ফজলুল করিম চৌধুরী, সিভিল সার্জন ডাঃ মাহবুবুর রহমান, ইউনিসেফের প্রটেকশন স্পেশালিস্ট শায়লা পারভীন লোনা, কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সহকারি পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) এডভোকেট প্রতিভা দাশ।

মানবপাচার বিষয়ে প্যানেল আলোচকদের কাছে প্রশ্ন করেন শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। সবাই মানবপাচারের সঠিক কারণ চিহ্নিত করে তা রোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তুলেন।

বেতার সংলাপে বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজারের আঞ্চলিক পরিচালক ফখরুল করিমসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, ইউনিসেফের চাইল্ড হেল্প ডেস্ক নাম্বার ১০৯৮’তে যোগাযোগ করে পাচার সংক্রান্ত তথ্য জানানো যাবে।