নাইক্ষ্যংছড়ির ৩ ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিল জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর

নাইক্ষ্যংছড়ির ৩ ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিল জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক, উখিয়া
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

পার্বত্য বান্দরবার জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলোর ঘুমধুম ও সোনাইছড়ির অনুমোদনহীন ৩টি ইটভাটা গুড়িয়ে দিয়েছে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এিই অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও বান্দরবান জেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ কামরুল হোসেন চৌধুরী।

অভিযান শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ কামরুল ইসলাম বলেন, ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ (সংশোধিত-২০১৯) এর ৪,৬ ও ৮ ধারা লংঘনের দায়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ঘুমধুমের এএসবি ব্রিকস, মোঃ আসিফের ইউআরএম ব্রিকস ও সোনাইছড়ির মারিগ্যাপাড়া প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন মনজুর আলমের মালিকাধীন এমএফজি ব্রিকস ফিল্ড ৩টি সম্পুর্ণ ভাবে এস্কাভেটর দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, অভিযানের সময় ভ্রাম্যমান আদালত এএসবি ব্রিকস ফিল্ডের মালিক আবুল কালামকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা করেন। অন্য ২টি ইটভাটার মালিকের বিরুদ্ধে নিয়মিত পরিবেশ আইনে মামলা রুজু করা হবে বলেও জানান তিনি।

নাইক্ষ্যংছড়ির ৩ ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিল জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর

অভিযানকালে বান্দরবান পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক একেএম শামিউল আলম খুরশি বলেন, ইটভাটাগুলি পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে পরিবেশগত ছাড়পত্র, জেলা প্রশাসন থেকে ইট পোড়ানো লাইসেন্স না নিয়েই পরিচালনা করা হচ্ছিল। এছাড়াও ইটভাটাগুলো লোকালয়ে এবং প্রাইমারী স্কুলের সাথে লাগোয়া।

তার মতে, পরিবেশের ক্ষতিকারক ইটভাটা গুলো ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ অনুযায়ী অবস্থান গ্রহণযোগ্য নয়। তাই এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে সকল অবৈধ ইটভাটা, পাহাড় কাটাসহ সকল ধরণের পরিবেশগত ক্ষতি বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

শামিউল আলম খুরশি আরও বলেন, অভিযানের সময় ৩টি ইটভাটার ড্রাম চিমনি ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে এবং প্রস্তুতকৃত কাঁচা ইট গুঁড়িয়ে দিয়ে ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আগুন নিভিয়ে দেয়া হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে আর এধরণের ভাটা স্থাপন করতে না পারে।

অভিযানকালে সাথে ছিলেন বান্দরবান জেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ মাসুদুর রহমান চৌধুরী, বান্দরবান পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আবদুস সালাম, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যরা।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!