সৈকতের বালুচরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চিরবিদায় রোহিঙ্গা মাদক কারবারি হাশিম ও আইয়ুবের

শহরে দু’টি লাশ পড়লো মধ্যরাতে, তাদের একজন ছিনতাইকারি রিফাত

নুরুল হক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এসময় ২টি এলজি, ৬ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৫ রাউন্ড গুলির খোসা ও ১০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) মধ্যরাত পৌণে দুইটার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরের কাছে মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সৈকত এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ১ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জি ব্লকের হোসন শরীফের ছেলে আবুল হাশিম (৩০) ও ৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ই/৩ ব্লকের শামসুল আলমের ছেলে মো. আইয়ুব (২৪)।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারস্থ র‌্যাব-১৫ ব্যাটালিয়নের সিপিসি-২ টেকনাফ হোয়াইক্যং ক্যাম্পের ইনচার্জ ও সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) শাহ আলম।

তিনি জানান, কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের শামলাপুর সৈকত এলাকায় ইয়াবার একটি চালান পাচারের গোপন সংবাদে র‌্যাবের একটি দল ওই এলাকায় অভিযানে যায়। এসময় অস্ত্রধারী ইয়াবা ব্যবসায়ীরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। বেশ কিছুক্ষণ ‘গুলিবিনিময়ে’র পর ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় র‌্যাবের তিন সদস্য আহত হন। পরে মাদক কারকারীরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে ইয়াবা, অস্ত্রসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আবুল হাসিম ও মো. আইয়ুবকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষনা করেন।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক শুভ দেব বলেন, গুলিবিদ্ধ দুই ব্যক্তিকে নিয়ে আসে র‌্যাব। তাদের শরীরে গুলির আঘাত রয়েছে এবং আহত র‌্যাব সদস্যদের চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।