টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবারও নারী ইয়াবা কারবারির মৃত্যু

শহরে দু’টি লাশ পড়লো মধ্যরাতে, তাদের একজন ছিনতাইকারি রিফাত

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবারও এক নারী নিহত হয়েছেন। শনিবার দিনগত রাত একটার দিকে উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের খারাংখালী লবণের মাঠ এলাকায় মাদক কারবারি ‘দু’গ্রুপের এ বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ।

নিহত সমুদা বেগম (৪০) টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘড়িয়াপাড়ার বাসিন্দা। তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দু’টি মামলা রয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, সমুদা ইয়াবা ব্যবসায়ী এবং পেটে ইয়াবা রেখে তা পাচার করতেন। তার কাছ থেকে ১০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি প্রদীপ কুমার বলেন, পুলিশের একটি টহল দল প্রতিদিনের মতো টহল দিচ্ছিল। এ সময় হঠাৎ দূর থেকে গুলির শব্দ শুনে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক নারীকে পড়ে থাকতে দেখেন তারা।

তিনি দাবি করেন, গুলিবিদ্ধ ওই নারীর কাছ থেকে ১০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

তাকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

ওসি প্রদীপ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব থেকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. প্রণয় রুদ্র বলেন, পুলিশ শনিবার দিনগত রাতে গুলিবিদ্ধ এক নারীকে হাসপাতালে নিয়ে আসে পুলিশ। তার শরীরে একাধিক গুলির চিহ্ন ছিল।

তিনি জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ইতোপূর্বে ২০১৯ সালেও টেকনাফের নাফ নদীর কিনারায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আরেক মহিলা মাদক কারবারি নিহত হয়েছিলেন।