মসজিদে ‘রক্তলাল পতাকা’ উড়িয়ে কঠিন প্রতিশোধের হুঙ্কার দিল ইরান

মার্কিনিদের গুপ্তহত্যার শিকার আল-কুদস ফোর্সের প্রধান ও বিপ্লবী গার্ডস বাহিনীর কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় কঠিন প্রতিশোধ নেয়ার হুঙ্কার দিয়েছে ইরান।

যুক্তরাষ্ট্রকে হত্যার বদলার ইঙ্গিত দিয়ে ইরানের পবিত্র শহর কোমের জামকারান মসজিদের চূড়ায় ‘রক্তলাল পতাকা’ উত্তোলন করা হয়েছে।

জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেয়ার আহ্বানের প্রতীক হিসাবে এই রক্ত-লাল পতাকা উড়ানো হয়েছে বলে রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, ইরানের পবিত্র শহর কোমের জামকারান মসজিদের উপরে উত্তোলন করা হয়েছে। কাসেম সোলাইমানি এবং মার্কিন সেনাদের হাতে নিহত অন্যান্য কর্মকর্তারা নিহত হওয়ার পর এমন বিরল দৃশ্য দেখা গেল ইরানে।

রক্তলাল পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠানটি শনিবার ইরানের রাষ্ট্রীয় টিভি প্রচার করা হয়।

রক্ত-লাল পতাকা উড়ানোর পাশাপাশি অভিজাত কুদস ফোর্সের নিহত কমান্ডারের একটি ছবি শিয়া মুসলিমদের অন্যতম বৃহত্তম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মসজিদের ছাদে টাঙানো হয়।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো ইরান জামকারান মসজিদে রক্তলাল পতাকা ওড়ালো। পতাকাটিতে লেখা, ‘যারা হোসেনের রক্তের বদলা নিতে চায়’।

এই পতাকা ওড়ানোকে সোলাইমানি হত্যার দায়ে আমেরিকার ওপর ইরানের বদলা নেয়ার অঙ্গীকার হিসেবে দেখা হচ্ছে। সম্ভাব্য যুদ্ধের হুঁশিয়ারি হিসেবেও দেখা হচ্ছে এ পতাকাকে। শিয়া সংস্কৃতিতে লাল পতাকা দিয়ে অন্যায় রক্তপাতের বদলা নেয়ার প্রতীক।

শুক্রবার সকালে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বের হওয়ার সময় ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয় আল-কুদস ফোর্সের প্রধান ও বিপ্লবী গার্ডস বাহিনীর কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও ইরাকের হাশেদ নেটওয়ার্কের কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসকে।

এতে ইরানজুড়ে শোক ছড়িয়ে পড়েছে ও মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।