টেকনাফের পাহাড়ে দুই গ্রুপের ‘গোলাগুলি’, মারা গেলেন হ্নীলার সোনা মিয়া

টেকনাফের পাহাড়ে দুই গ্রুপের ‘গোলাগুলি’, মারা গেলেন হ্নীলার সোনা মিয়া

হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে দুই সন্ত্রাসি গ্রুপের মধ্যে ‘গোলাগুলি’র ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। ওই ঘটনায় অন্তত ৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

পুলিশ সুত্র জানিয়েছেন, ২৮ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) ভোর রাতে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের অপরাধপ্রবণ পাহাড়ি এলাকায় দু’দল স্বশস্ত্র গ্রুপের মধ্যে ‘গোলাগুলি’র খবর পেয়ে অভিযানে যায়। ওই সময় দূবৃর্ত্ত দলের সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করলে এএসআই সাইফ উদ্দিন (৩৬), কনষ্টেবল জুলিয়া নুর (২৬) ও মোস্তফা (২৭) আহত হন।

কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে একটি দেশীয় তৈরী এলজি, ৮ রাউন্ড তাঁজা বুলেট, ২৫ রাউন্ড খোসাসহ গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয় পুলিশ। সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই খবর পেয়ে একদল পুলিশ হাসপাতাল পরিদর্শন করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর নিহত ব্যক্তিকে হ্নীলার উলুচামরীর মৃত হায়দর আলীর ছেলে মোঃ উল্লাহ ওরফে সোনা মিয়া (৪৫) বলে সনাক্ত করা হয়।

মৃতদেহ উদ্ধার করে পোস্টমর্টেমের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মোঃ রাকিবুল ইসলাম জানান, দু,পক্ষের গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ অভিযানে গেলে দূবৃর্ত্তদের গুলিতে ৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে ১টি এলজি ও বুলেটসহ গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়। সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যায়।

এই ব্যাপারে তদন্ত স্বাপেক্ষে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।