কক্সবাজারের নারী সার্ফার নাসিমার জীবনের গল্প ‘ন ডরাই’ সিনেমার একটা টিকিট কিনলে আরেকটা ফ্রি

কক্সবাজারের নারী সার্ফার নাসিমার জীবনের গল্প নিয়ে ছবি ‘ন ডরাই’, মুক্তি ২৯ নভেম্বর

মুক্তি পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো নির্মিত সার্ফিং নিয়ে নির্মিত পূর্ণদৈর্ঘ্য ‘ন ডরাই’। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড আজ (২৫ নভেম্বর) ছবিটির ছাড়পত্র দিয়েছে। শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) ‘ন ডরাই’ সিনেমাটি মুক্তি পাবে। ছবির মুক্তি উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সিনেমাটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান স্টার সিনেপ্লেক্স।

সিনেমাটির পুরো টিম নিয়ে এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল ও প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ। প্রথম প্রযোজিত ছবিটি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত প্রযোজক। অনুষ্ঠানে তার স্বপ্নের এই ছবিটির নানা দিক নিয়ে কথা বলেন তিনি। ছবিটির নানা বিষয় তুলে ধরেন এর পরিচালক তানিম রহমান অংশু, নায়ক শরিফুল রাজ, নায়িকা সুনেরা বিনতে কামাল। ‘ন ডরাই’ সিনেমাটির গল্প নিয়ে একটি কমিক্সের বই করা হয়েছে। বইটির মোড়ক উন্মোচন করা হয় এই অনুষ্ঠানে।

স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল বলেন, ‘আমি সিনেমাটি নিয়ে কয়েকটি বিদেশি ফেস্টিভ্যালে গেছি। সবখানেই প্রশংসিত হয়েছে ছবিটি। আশা করি আমাদের দেশের দর্শকের কাছে প্রশংসিত হবে। দর্শকদের একটা একটা বিষয় জানাতে চাই। কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের আমাদের ছবিটির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।’

‘এর মধ্যে আছে ডেইলি স্টার, বিকাশ, ডিউ। কেউ যদি বিকাশ অ্যাপের মাধ্যামে আমাদের এই ছবির টিকিট কাটেন। তাহলে একটা টিকিটের সাথে আরেকা একটা টিকিট ফ্রি পাবেন। এই অফারটি শুধুমাত্র সিনেপ্লেক্সে এসে ছবি দেখলেই পাওয়া যাবে।’

নির্মাতা তানিম রহমান অংশু বলেন, ‘একজন নারী সার্ফারের জীবন থেকে উৎসাহিত তৈরি হয়েছে ছবির গল্প। নারীর এগিয়ে যাওয়ার বার্তাও থাকছে সিনেমায়। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় নির্মিত হয়েছে ‘ন ডরাই’। আমরা তিনমাস চিন্তা করে ছবিটির নাম নির্ধারণ করি। এই শব্দের মানে হলো ভয় করি না। ছবিতে সমাজ ও পরিবারের ভয়কে জয় করে সার্ফার হিসেবে এক নারীর প্রতিষ্ঠার গল্প তুলে ধরা হয়েছে। যা নারীদের উৎসাহিত করবে।’

নায়ক শরিফুল রাজ বলেন, ‘আমার উল্লেখযোগ্য একটি সিনেমা হয়ে থাকবে ‘ন ডরাই’। অন্যরকম একটি চিন্তার ছবি এটি। এমন একটি ছবির সঙ্গে থাকতে পেরে নিজেকে সোভাগ্যাবান মনে করি। এই ছবিটি করতে গিয়ে সামনে আরও ভালো কাজ করার আগ্রহ তৈরি হয়েছে। আমার বিশ্বাস সবার ভালো লাগবে আমাদের।’

নায়িকা সুনেরা বিনতে কামাল বলেন, ‘ছবিটির জন্য সার্ফিং শিখেছি। অনেক পরিশ্রম করেছি আমরা। একবার সমুদ্রে ডুবেও যাচ্ছিলাম সার্ফিয়ের অনুশীলন করার সময়। সবাই ছবিটি দেখলে আমাদের পরিশ্রম সার্থক হবে।’

কিছু আপত্তিকর সংলাপের জন্য সেন্সর বোর্ডে আটকে রেখেছিল ‘ন ডরাই’। অবশেষে সে সব সংলাপের পরিবর্তন করে সোমবার ছবিটিকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন কলকাতার শ্যামল সেনগুপ্ত। এর আগে এই চিত্রনাট্যকার দেবের ‘বুনোহাঁস’ ও অমিতাভ-দীপিকার ‘পিংক’ ছবির চিত্রনাট্য লিখে প্রশংসিত হন।

প্রসঙ্গত, বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের ভাষা, বিশেষত সমুদ্র নগরী কক্সবাজারের আঞ্চলিক ভাষায় নির্মিত সিনেমাটি কক্সবাজারের নারী সার্ফার নাসিমার জীবনের সত্যি ঘটনা অবলম্বনে তৈরি করা হয়েছে। সিনেমাটির দৃশ্য ধারণ হয়েছে কক্সবাজার ও সেন্টমার্টিনে।