রামু চৌমুহনীজুড়ে ড্রেনের কাদা পানি, কর্তৃপক্ষের নজর চায় মানুষ

রামু চৌমুহনীজুড়ে ড্রেনের কাদা পানি, কর্তৃপক্ষের নজর চায় মানুষ

মুহাম্মদ আবু বকর ছিদ্দিক, রামু
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা যোগদানের পরপরই বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও পাহাড় কাটা বন্ধ, ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালি উত্তোলন ও বাল্যবিয়ে বন্ধসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড বন্ধে কাজ করে যাচ্ছেন। রামু চৌমুহনী স্টেশনের উভয়পাশের ঝুপড়ি দোকানগুলো উচ্ছেদ অভিযানের পর থেকে ওই এলাকাকে নতুন ভাবে সাজাতে চেষ্টা করলেও এখনও চৌমুহনীর উভয়পাশ কর্দমাক্ত হয়ে থাকায় ব্যবসায়ী মহল ও সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মহল ও সাধারণ লোকজন জানান, রামু চৌমুহনী কালীবাড়ি সংলগ্ন উচুঁ স্থানের মাটি খননের কারণে চৌমুহনীর ড্রেন অকেজো হয়ে পড়ায় ড্রেনে জমে থাকা কাদাযুক্ত পানি রাস্তার উপর ছড়িয়ে স্কুলের ছাত্রছাত্রী, পথচারী ও গাড়ি চলাচলে বিঘ্ন ঘটাছে।

তাদের মতে, কাদার স্তুপ দীর্ঘদিন ধরে পরিস্কার না করায় ডেঙ্গু মশা সৃষ্টিরও আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী জানান, কিছুদিন আগে এক মহিলা পথচারী ড্রেনের পানিতে পড়ে কর্দমাক্ত হয়ে নিদারুণ লজ্জার শিকার হন। ড্রেনের কাদা পানির কারণে জনসাধারণের চলাচল ও সড়ক দূর্ঘটনার আশঙ্কাও করছেন তিনি।

রামু চৌমুহনীর উচুঁস্থান নিচু হওয়ায় ড্রেনের কাদার পানির কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টিসহ পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।

একাধিক পথচারী জানান, আগে চৌমুহনীতে কোন না কোন ভাবে চলাচলের ব্যবস্থা থাকলেও বর্তমানে ওই স্থান নিচু হওয়ায় যত্রতত্র গাড়ি পার্কিংয়ের কারণে চলাচলের বিঘ্ন ঘটছে।

পথচারীরা আরও জানান, গাড়ি পার্কিংয়ের সুনির্দিষ্ট স্থান না থাকায় প্রতি মুহুর্তে যানজটের সৃষ্টি হয়।

এক পথচারী মহিলা জানান, পুরুষরা গা ঘেঁষে চলাচল করতে পারলেও মহিলারা অগোছালো গাড়ি থাকায় চলাচল করতে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

রামুর সর্বমহল জানান, রামুতে সেনানিবাস, বিজিবি ক্যাম্প, বোটানিক্যাল গার্ডেন, নারকেল বাগান, রাবার বাগান, বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন বৌদ্ধ মন্দিরসহ বিভিন্ন পর্যটন স্থান দেখার জন্য বিদেশ থেকে পর্যটক আসলেও রামুর জনবহুল প্রাণকেন্দ্রে ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। রামুর এই সমস্যা গুলোর বিষয়ে ভুক্তভোগীরা দৃষ্টি আকর্ষণ করেন জনপ্রতিনিধি ও প্রসাশনসহ কর্তৃপক্ষের প্রতি।

এই বিষয়ে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা বলেন, এই সৃষ্ট সমস্যার সুষ্ঠু সমাধানের পরিকল্পনা করে জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো।