৩৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ, টেকনাফ বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যানসহ সচিব ধরা

ভুয়া প্রকল্পে সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কক্সবাজারের টেকনাফের উপকূলীয় বাহারছরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মৌলভী আজিজ উদ্দিন ও তার সাবেক সচিব রিয়াজুল হককে (বর্তমানে সেন্টমার্টন ইউপির সচিব) গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়-২ কক্সবাজারের উপ-সহকারী পরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রিয়াজুল হক।

তিনি জানান, ১২টি ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে টেকনাফের উপকূলীয় বাহারছরা ইউনিয়ন পরিষদের ফান্ড থেকে ৩৫ লাখ ৫১ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন চেয়ারম্যান মৌলভী আজিজ উদ্দিন। তাকে সহযোগিতা করেন সে সময়ের সচিব রিয়াজুল হক। এমনটি অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে দুদক। তদন্তে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা (স্পেশাল-৩/২০১৯) করা হয়। সেই মামলার ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারদের কক্সবাজার সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন এই দুদক কর্মকর্তা।

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান কবির জানান, এখনো কাউকে থানায় হস্তান্তর করেনি দুদক। হস্তান্তর করা হলে নানা প্রক্রিয়া শেষে তাদের কক্সবাজার জেলা স্পেশাল জজ আদালতে তোলা হবে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মেরিন ড্রাইভ সড়কে অধিগ্রহণে পড়ে ইউনিয়ন পরিষদের নামীয় জমি। সেই জমির বিপরীতে প্রায় সোয়া কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পায় পরিষদ। তা তুলে সেখান থেকেই প্রায় সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন চেয়ারম্যান ও সচিব। এ নিয়েই মামলা করেছে দুদক।