চৌফলদন্ডীর ‘নিখোঁজ’ একরাম মেম্বারের গুলিবিদ্ধ লাশ মিললো হাসপাতাল মর্গে!

কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) একরামুল হক ওরফে একরাম মেম্বারের গুলিবিদ্ধ লাশ মিলেছে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে। গত ২৯ অক্টোবর কক্সবাজার সদর উপজেলা গেইট এলাকা থেকে নিখোঁজ হওয়ার পর তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) সকালে জীবিত নয়, লাশের সন্ধান মেলে সদর হাসপাতালে।

একরাম মেম্বারের ছোটভাই নূরুল আজিমের বরাত দিয়ে স্থানীয় সাংবাদিক এইচএন আলম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এইচএন আলম জানান, গত ২৯ অক্টোবর উপজেলা পরিষদে গিয়েছিলেন একরামুল হক মেম্বার। সেখান থেকে সকাল ১১টায় একদল সাদা পোশাকধারী লোক নোয়াহ গাড়িতে করে তাকে তুলে নিয়ে যান। সেই থেকে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাননি পরিবারের লোকজন।

পরিবারের সদস্যদের মতে, বৃহস্পতিবার বিকালের দিকে তার লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পড়ে থাকার খবর পায় পরিবারের লোকজন। পরে তারা মর্গে গিয়ে নিশ্চিত হন।

একরাম মেম্বারের শরীরে গুলির আঘাত রয়েছে বলে জানান ছোট ভাই নূরুল আজিম।

নিহত একরাম মেম্বারের দুই স্ত্রী এবং এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে।

এ ব্যাপারে পুলিশ বা কোনো আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বক্তব্য মিলছে না।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ খায়রুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ হাসপাতাল মর্গে একটি অজ্ঞাত লাশের খবর পায়। পরে তা চৌফলদন্ডীর একরাম মেম্বারের লাশ হিসেবে সনাক্ত করা হয়।