মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে ইলিশের নিষেধাজ্ঞা

দুইমাস বন্ধ থাকার পর এবার ২৩ দিন ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ

বাজারে ইলিশের অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে আজ (৩০ অক্টোবর)। টানা ২২ দিন পর আজ মধ্যরাত (১২টার পর) থেকে উঠে যাচ্ছে ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা। ইতোমধ্যে সাগর ও নদীতে নামতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন জেলেরা। ফলে আবারও বাজারে দেখা মিলবে মাছের রাজা ইলিশের।

দেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা কক্সবাজার, চট্টগ্রামসহ দেশের বরগুনার তালতলী ও আমতলী, পটুয়াখালীর গলাচিপা, রাঙ্গাবালী, কলাপাড়ার মহিপুর, কুয়াকাটার সাগর পাড়ের জেলেরা মাছ শিকারে অপেক্ষার প্রহর গুণছেন। জেলেরা জানান, ২২ দিনে তারা মাছ শিকারে নামতে পারেননি। সংসারে অভাব-অনটন প্রকট আকার ধারণ করেছে। জেলেরা বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা ধার, কেউবা এনজিও, সমিতি, বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছেন। ট্রলার, নৌকা, জাল মেরামত কাজ সম্পন্ন করে রাত থেকেই সাগরে নামতে তারা সব আয়োজন সমাপ্ত করেছেন।

মঙ্গলবার বরিশালের মেঘনা, কালাবদর, তেঁতুলিয়া, মাসকাটা, কীর্তনখোলা নদীতে মৎস্য বিভাগ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে আটক জাল এবং জেলেদের পাশাপাশি যেসব মাছ পাওয়া গেছে সেসব মাছের ৪০-৫০ শতাংশ ইলিশেরই পেটভর্তি ডিম পাওয়া যায়।

এ বছর মা ইলিশ ধরা নিষেধাজ্ঞার সময় ৩৫ জেলার ১৪৭টি উপজেলায় চার লাখ আট হাজার ৩২৯টি জেলে পরিবারকে ২০ কেজি হারে আট হাজার ১৬৭ টন খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। জাটকা ধরা নিষিদ্ধকালীন আট মাস দেশের ১৭ জেলার ৮৫টি উপজেলায় জাটকা আহরণে বিরত দুই লাখ ৪৮ হাজার ৬৭৪টি জেলে পরিবারে ৪০ কেজি হারে চার মাসের জন্য প্রায় ৩৯ হাজার ৭৮৮ টন ভিজিএফ খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে।