রামুতে আগুনে পুড়ে অঙ্গার ৫ বছরের শিশু, জ্বলে ছাই বসতঘর

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের দৌছড়ি ঢালারমুখ এলাকায় রান্নার তেল থেকে সৃষ্ট আগুনে পুড়ে গেছে ৫ বছর বয়সী এক শিশুসহ একটি বসতঘর। নিহত শিশুর নাম আবদুল আউয়াল জেহাদ (৫)। তার বাবা আনসারুল্লাহ। বাড়ি নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের লেবুছড়ি ৬ নম্বর ওয়ার্ডে।

অগ্নিকান্ডের এই ঘটনায় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৫ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানান, প্রতি সপ্তাহের মতো হাটের দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে বাড়ির কর্তা জাফর আলম স্থানীয় গর্জনিয়া বাজার থেকে কাঁচা মাছ আনেন। বাড়ির গৃহিনীরা এই মাছ রান্না করতে গিয়ে এক পর্যায়ে আগুন ধরে যায়। তখন বাড়িতে দুইজন নারী ছাড়া তেমন কেউ ছিলেন না। এই কারণে আগুন নিজের মতো দ্রুত সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে।

ওই সময় বেড়াতে আসা গৃহকর্তা জাফরের মেয়ের ঘরের ঘুমন্ত নাতি আবদুল আউয়াল নিমিষেই পুড়ে যায় আগুনে। পাশাপাশি আরও এক শিশু অনুরূপ আগুনের মাঝখানে অতি জোরে জোরে চিৎকার করতে থাকে। লোকজন এগিয়ে এসে শেষের জনকে উদ্ধার করতে পারলেও আগের শিশুটি মরে কংঙ্কাল হয়ে যায়।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার জয়নাল আবেদীন জানান, এ ঘটনায় ৩ জন আহত হন। আর ক্ষয়ক্ষতি হয় নগদ এক লাখ টাকাসহ প্রায় ৪ লাখ টাকা।

তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্থরা মৃত এই শিশুর জন্যে আহাজারি করছেন। আর গৃহকর্তাসহ পরিবারের সদস্যরা খোলা আকাশের নিচে।

এ ঘটনায় পুরো দৌছড়ি এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ইতোপূর্বে গত ৩ সেপ্টেম্বর গহীন রাতে পার্শ্ববর্তী গর্জনিয়া বাজারে আগুনে পুড়ে এক ব্যবসায়ী ও এক কর্মচারী পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছিল।