কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘকে ‘পরীক্ষা’য় ফেললেন ইমরান

কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘকে ‘পরীক্ষা’য় ফেললেন ইমরান

কাশ্মীর নিয়ে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে তীব্র উত্তেজনার মধ্যেই জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে এ নিয়ে বক্তব্য রাখলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শুক্রবার ওই ভাষণে ইমরান খান বলেন, যদি পরমাণু শক্তিধর দুই দেশের মধ্যে লড়াই বাঁধে তবে তার পরিণতি ভোগ করতে হবে সারা বিশ্বকেই।

জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে বিভিন্ন উদাহরণ টেনে জাতিসংঘে ওই বক্তব্যে ইমরান বলেন, এটা জাতিসংঘের জন্য একটি পরীক্ষা। শুক্রবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পর পরই ভাষণ দিয়েছেন ইমরান। মোদি তার ভাষণে সরাসরি পাকিস্তানে কথা না তুললেও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বিশ্বকে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

নিজের দীর্ঘ বক্তৃতায় ইমরান খান জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুকেই জোর দিয়েছেন। তিনি বলেন, যদি গতানুগতিক যুদ্ধ বাঁধে তবে যে কোনো ঘটনাই ঘটতে পারে। এমন পরিস্থিতি হলে পাকিস্তান তার চেয়ে সাতগুণ বড় প্রতিবেশী দেশকে কীভাবে মোকাবিলা করবে? হয় আমাদের নত স্বীকার করতে হবে অথবা আমাদের মৃত্যু পর্যন্ত লড়াই করে যেতে হবে। আমরা কি করব? আমি নিজেকেই এই প্রশ্ন করি। আমার বিশ্বাস আল্লাহ ছাড়া কেউ নেই। আর আমরা লড়াই করে যাব। তিনি বলেন, যদি একটি পরমাণু শক্তিধর দেশ শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যায় তবে তা সীমান্ত ছাড়িয়ে অন্য দেশেও ছড়িয়ে পড়বে।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, বর্তমানে পাকিস্তানে কোনো জঙ্গি সংগঠন নেই। কিন্তু পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, মানবিকতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদ যা করছে, বিশ্বজুড়ে তা নিয়ে আরও ক্ষোভের সঞ্চার হওয়ার প্রয়োজন।

তিনি বলেন, আমরা বিশ্বকে বুদ্ধ দিয়েছি, যুদ্ধ নয়। যখন আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হই, তা গুরুত্ব এবং ক্ষোভে ভরা থাকে। তিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি যে, সন্ত্রাসবাদ কোনও একটি বিশেষ দেশের কাছে চ্যালেঞ্জ নয়, সব দেশ এবং মানবতার কাছেই চ্যালেঞ্জ। মানবতার জন্য, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বিশ্বকে এক হতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!