পেকুয়া

মেয়ের চুরির অপবাদে বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা

রিয়াজ উদ্দিন
নিজস্ব প্রতিবেদক, পেকুয়া
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের উপকূলীয় উপজেলা পেকুয়ায় মেয়ের টাকা চুরির অপবাদে বিষপান করে দানু মিয়া (৩৮) নামের এক পিতা আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের হেদায়তবাদ গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। দানু মিয়ার ওই এলাকার মৃত ছৈয়দ নুরের ছেলে।

স্থানীয়রা তাকে মুমূর্ষাবস্থায় উদ্ধার করে ডাক্তার মুজিবুর রহমানের ক্লিনিকে ভর্তি করেন।

চিকিৎসক মুজিবুর রহমান জানান, অল্প করে বিষ খেয়েছে। ওয়াশ করে দিয়েছি। বিপদমুক্ত এখন।

স্থানীয় সুত্র জানান, দানু মিয়ার মেয়ে রোকসানা আক্তার (১৪) সদর ইউনিয়নের খালেদ নামের এক লোকের বাসায় ৫ মাস আগে গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজ করে। খালেদ স্ব-পরিবারে ভাড়া বাসায় ঢাকা থাকেন। ওই মহিলা মালিকের দুই দফা টাকা চুরি হয়।

খালেদের এক নিকটাত্মীয় জানান, রোকসানা খালেদের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করে। তারা ঢাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন। ২০ দিন আগে মালিকের ৪০ হাজার টাকা বাসা থেকে চুরি হয়। ওই টাকা রোকসানা বিকাশের মাধ্যমে তার বাবা দানু মিয়ার কাছে পাঠায়। শিলখালী উচ্চ বিদ্যালয় ষ্টেশনে জনৈক জুবাইরের বিকাশের দোকান থেকে টাকাগুলো উত্তোলন করেন দানু মিয়া। কয়েকদিন আগে একই বাসা থেকে দেড় লাখ টাকা চুরি হয়ে যায়। রোকসানা ওই টাকা বাসায় লুকিয়ে রাখে। জিজ্ঞাসাবাদে রোকসানা দুই দফা টাকা চুরির কথা স্বীকারও করে। সে জানায়, প্রথমবারের চুরি হওয়া ৪০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে তার বাবার কাছে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, চুরির ঘটনা প্রকাশ হওয়ায় সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে রোকসানাকে শিলখালী তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। খালেদের এক আত্মীয় রোকসানাকে তার বাবার বাড়িতে নিয়ে আসেন। এ সময় ওই ব্যক্তি টাকা চুরির বিষয়টি রোকসানার বাবাকে জানান এবং বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো ৪০ হাজার টাকা ফেরত চান রোকসানার বাবার কাছে।

এদিকে টাকা চুরির বিষয়টি এলাকায় চাউর হয়।

রোকসানার চাচা মনিরুল ইসলাম বলেন, টাকা উত্তোলনের সত্যতা যাচাই করতে খালেদের এক আত্মীয়কে নিয়ে সকালে আমি, বড় ভাই মাহফুজ, রোকসানার মা ভেলুয়ারা বেগমসহ জুবাইরের বিকাশের দোকানে যাই। এ সময় টাকা উত্তোলনের সত্যতা নিশ্চিত হয়েছি।

দানু মিয়ার ভাই মাহফুজ, নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা ভাই ও ভাবিকে টাকাগুলি ফেরত দিতে বলেছি। কিন্তু তারা কিছুতেই টাকা উত্তোলনের কথা স্বীকার করতে রাজি না।

তবে বিকাশ দোকানের মালিক জুবাইর টাকা উত্তোলনের কথা স্বীকার করেছেন।

এদিকে মেয়ের টাকা চুরির ঘটনায় ক্ষিপ্ত হন ভাই দানু মিয়া। চুরির অপমান সহ্য করতে না পেরে দানু মিয়া দুইদফা বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান।

নুরুল ইসলামের স্ত্রী শাহেনা বেগম বলেন, দানু মিয়া চড়াপাড়া বাজার থেকে বিষের বোতল এনে ঘরে আত্মহত‌্যার চেষ্টা করেন। আমি তার কাছ থেকে বোতলটি ছিনিয়ে নিই। পরে ইউপি সদস্য শাহাব উদ্দিনকে বোতলটি জমা দিয়েছি। কয়েক ঘন্টা পর আবার বিষের বোতল এনে সবার অজান্তে বাড়িতে বিষপান করে।

ইউপি সদস্য শাহাব উদ্দিন বলেন, একজন মহিলা সকালে একটি বিষের বোতল জমা দিয়েছে। টাকা চুরির বিষয় নিয়ে অপমানে দানু মিয়া বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে বলে স্থানীয়রা আমাকে জানিয়েছে।

পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আজম বলেন, এ ধরণের খবর কানে আসেনি। খোঁজ নিচ্ছি।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!