খুরুশকুলে জনপ্রতিনিধির সহায়তায় যুবককে পিঠিয়ে যখম

প্রধান প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম
কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে নিজের বাড়ির পাহাড় থেকে মাটি কাটা বন্ধের প্রতিবাদ করায় নবিউল আহমদ নামে এক যুবককে বেদড়ক পিঠানোর অভিযোগ উঠেছে। শেখ কামাল নামে এক ইউপি সদস্য ও খুরুশকুলের আরেক সন্ত্রাসী দলা উদ্দিন ফার্ভেজ দলবল নিয়ে হামলা চালায় নিরহ নবিউলের উপর। এমন অভিযোগ তুলেছেন আহত ব্যক্তি নিজেই। গুরতর আহত মো: নবিউল আহমদ কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি খুরুশকুলের তেতিয়া বৈল্লা বাবুর পাড়ার রুস্তম আহমদের ছেলে। মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) খুরুশকুলের কাওয়ার পাড়া সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।
আহত নবিউল আহমদ জানান, তার বাড়ির পাহাড় থেকে থেকে খুরুশকুলে নুরুল আলম বদ্দারের ছেলে দলা উদ্দিন ফার্ভেজ দীর্ঘদিন মাটি কেটে আসছে। বিভিন্ন সময় মাটি কাটা বন্ধে বলা হলেও রাতে কিংবা বাড়ি না থাকার সুযোগে পোরদমে মাটি কেটে আসছেন দলা উদ্দিন ফার্ভেজ। বাধা দেয়া হলেও কোন ধরণের তোয়াক্কা করতেন না তিনি। নিজের প্রভাব দেখিয়ে প্রতিনিয়ত মারধর করার হুমকি দিতেন দলা উদ্দিন। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার মাটি কাটতে গেলে বাধা দিলে নবিউলের উপর হামলে পড়ে ধলা উদ্দিন ফার্ভেজ।
সদর হাসপাতালে গুরতর আহত হয়ে ভর্তি হওয়া নবিউলের দাবী, ওই সময় জনপ্রতিনিধি শেখ কামালের কাছে বিষয়টি গেলে তিনিসহ নবিউলকে মারাত্বক ভাবে আঘাত করে ধলা উদ্দিন। এক পর্যায়ে মারতে মারতে খুরুশকুলের কাওয়ার পাড়া বাড়িতে বেঁধে রাখতে চেষ্টা করেন নুরুল আলম বদ্দারের ছেলে দলা উদ্দিন ফার্ভেজ।
এদিকে বিষয়টি নিয়ে খুরুশকুলের তেতিয়া এমইউপি সদস্য শেখ কামালের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি শুনেছি। সদর হাসাতালে দেখতে গিয়েছি। আহত ব্যক্তি আমার চাচাতো ভাই।
নবিউলের উপর হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে শেখ কামাল দাবী করেন তাকে কোন ধরণের হামলা করেননি। এবং জড়িত নেই। তবে ঘটনা সম্পর্কে অবগত হয়ে হাসপাতালে দেখতে গেছেন তিনি। মারাত্বক ভাবে আঘাত করার পরে বিষয়টি নিয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় কোন প্রকার অবগত করেছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি সামাজিক ভাবে বৈঠক হবে বলে জানিয়ে দেন।
এদিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, হামলার বিষয়ে অভিযোগ এখনো পায়নি। কেউ অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান ওসি।