পরকিয়া প্রেমিকের হাত ধরে উধাও শাবনূর

পরকিয়া প্রেমিকের হাত ধরে উধাও শাবনূর

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে শিশু সন্তানসহ পরকিয়া প্রেমিকের সঙ্গে উধাও হয়ে গেছেন প্রবাসীর স্ত্রী। এ ঘটনাটি ঘটেছে টেকনাফ পৌরসভার ইসলামাবাদ এলাকায়।

এই ঘটনায় শনিবার (২৭ জুলাই) সকালে ওই প্রবাসীর বাবা আব্দুল মতলব বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ৪ বছর আগে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের ঝিনাপাড়া এলাকার আব্দুল মতলবের ছেলে মোঃ সাকেরের সাথে টেকনাফ পৌরসভার ইসলামাবাদ এলাকার হাসন আহম্মদের মেয়ে শাবনূর আক্তারের পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে এক ছেলে সন্তানও রয়েছে। তাদের বিয়ের কিছুদিন পর স্ত্রী শাবনূরকে বাপের বাড়িতে রেখে স্বামী বিদেশ চলে যান। তারপর থেকে শাবনূর বাপের বাড়িতে থাকছেন।

প্রতিবছর বিদেশ থেকে স্বামী সাকের এসে শ্বাশুর বাড়িতে থেকে আবার বিদেশ চলে যান। তবে স্বামী বিদেশ থাকলেও স্ত্রীর ভরন পোষণ চালিয়ে আসছিলেন। তাছাড়াও বিয়ের সময় স্ত্রীকে ১২ ভরি স্বর্ণালংকারও দেন ওই প্রবাসী।

এদিকে বাপের বাড়ি থাকা অবস্থায় তার স্ত্রী শাবনূর প্রতিবেশী মোঃ রাশেল নামে এক ছেলের সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়েন। এভাবে কিছুদিন যেতে না যেতেই গত ১৭ জুলাই দিবাগত রাতে শাবনূর সন্তানসহ বাপের বাড়ি থেকে স্বর্ণালংকার ও পাঠানো টাকা নিয়ে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যান।

এই খবরে প্রবাসী সাকের তার বাবা আব্দুল মতলবকে শ্বাশুর বাড়িতে পাঠালে তারা কেউ কোন কথা না বলে উল্টো হুমকি ও ধমকি দিয়ে আসছে। এমনকি মেয়ের বাবাকে ফোন দিলেও কোন কথা বলছে না বলে জানান আব্দুল মতলব।

তবে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবগত করে প্রবাসী সাকেরের বাবা আব্দুল মতলব বাদী হয়ে পুত্রবধূ ও পরকিয়া প্রেমিকসহ কয়েকজনকে আসামী করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এই অভিযোগ নিয়ে পুলিশ কাজ শুরু করেছে বলেও জানা গেছে।

এ ঘটনার সুষ্টু বিচার দাবি করে প্রবাসী সাকেরের বাবা আব্দুল মতলব বলেন, আমার নাতি, স্বর্ণালংকার ও কয়েক লাখ নগদ টাকা নিয়ে পালিয়েছে পুত্রবধূ। তারা পালিয়ে গিয়েও আমার ছেলেকে মুঠোফোনে উল্টো হুমকি দিচ্ছে।

তিনি বলেন, আমার ছেলে সরল বিশ্বাসে পুত্রবধূকে বাপের বাড়ি রেখে যায়। অথচ ছেলের সেই সরল বিশ্বাস ভঙ্গ করে পরকিয়ায় আসক্ত হয়ে পালিয়ে গেছে।

‘আমি কিছু চাই না, নাতি এবং বিয়ের সময় দেয়া স্বর্ণালংকার ও ছেলে থেকে হাতিয়ে নেয়া নগদ টাকা গুলো ফেরত চাই’ বললেন আবদুল মতলব।