স্কুল থেকে ডেকে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করলো কলেজছাত্র

১০ দিন হোটেলে আটকে রেখে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, পুলিশের কব্জায় ধর্ষণকারি যুবক

ঢাকার ধামরাইয়ে স্কুল থেকে ডেকে নিয়ে পঞ্চম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে আমির হোসেন নামে এক কলেজছাত্র। বিষয়টি জানাজানি হলে অভিযুক্ত ওই যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী।

বুধবার দুপুরে ধামরাইয়ের কুল্লা ইউনিয়নের বানেশ্বর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আটককৃত আমির হোসেন (২০) বানেশ্বর গ্রামের মো. ওসমানের ছেলে। সে সাভারের মির্জা গোলাম হাফিজ কলেজের ছাত্র।

থানা পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুরে ওই ছাত্রী স্কুলে গেলে তাকে ক্লাস থেকে ডেকে নিয়ে যায় সজীব নামে এক যুবক। পরে পার্শ্ববর্তী আব্দুল মান্নানের মালিকানাধীন একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে শিশুটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে বখাটে আমির হোসেন। ধর্ষণের ঘটনায় সহযোগিতা করে সামাদ নামে আরও এক যুবক।

বিষয়টি কাউকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায় বখাটেরা। এ সময় শিশুটি স্কুলে না ফিরে রক্তাক্ত অবস্থায় কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি চলে যায়। তার এমন অবস্থা দেখে পরিবারের লোকজন কারণ জানতে চাইলে সে পুরো ঘটনাটি খুলে বলে। পরে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির কাছে বিচার দাবি করে শিশুটির পরিবার।

এ ঘটনায় বুধবার বিকেলে স্থানীয়ভাবে সালিশ করে ধর্ষক আমির হোসেনকে চর-থাপ্পড় মেরে ছেড়ে দিতে চায় গ্রামের মাতব্বররা। কিন্তু গ্রামবাসীরা এর প্রতিবাদ করে ধর্ষক আমির হোসেনকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং ধর্ষণে সহায়তাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।