প্রিয়া সাহার অভিযোগ বিএনপির জন্য ‘বড় এজেন্ডা’!

প্রিয়া সাহার অভিযোগ বিএনপির জন্য ‘বড় এজেন্ডা’!

‘তিন কোটি ৭০ লাখ হিন্দু ধর্মাবলম্বী বাংলাদেশ থেকে গায়েব হয়ে গিয়েছে’ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নেত্রী প্রিয়া সাহা বর্তমানে সাময়িক বহিষ্কার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে যে অভিযোগ করেছেন তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে রাজনৈতিক-সামাজিক বিভিন্ন সংগঠনসহ ব্যক্তি পর্যায়ে তীব্র সমালোচনার ঝড় বইলেও বিষয়টি নিয়ে কৌশলী অবস্থানে বিএনপি।

দলটির দুই মুখপাত্র এ নিয়ে কোনো মন্তব্য না করলেও মাঝারি সারির নেতাদের মতে, প্রিয়া সাহা বড় এজেন্ডা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে অভিযোগ উপস্থাপন করেছেন, যা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল। খবর জাগোনিউজের।

গত ১৭ জুলাই প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে নালিশ করে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। সেখানে ৩৭ মিলিয়ন (তিন কোটি ৭০ লাখ) হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান উধাও হয়ে গেছে। এখনও সেখানে ১৮ মিলিয়ন (এক কোটি ৮০ লাখ) সংখ্যালঘু জনগণ রয়েছে। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ত্যাগ করতে চাই না। আমি আমার ঘর হারিয়েছি, আমার জমি নিয়ে গেছে। আমার ঘরবাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। কিন্তু সেসবের কোনো বিচার নাই।’

প্রিয়া সাহাকে ট্রাম্প সে সময় জিজ্ঞাসা করেন, এসব কারা করছে? জবাবে প্রিয়া সাহা বলেন, ‘উগ্রবাদী মুসলিমরা এ কাজ করছে। সবসময় তারা রাজনৈতিক প্রশ্রয়ে এ কাজ করে।’

প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াসহ গণমাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়। এ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিও নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না।’

তিনি বলেন, ‘আমি নিজে ফেসবুক ব্যবহার না করলেও, আমার নামে ফেসবুকে চারটি অ্যাকাউন্ট রয়েছে। অনলাইনে এসব বক্তব্যের ভিত্তি নেই।’

দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেন, ‘এ বিষয়ে আমরা পরে জানাব।’

ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগ প্রসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সদস্য সচিব ও দলের বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ‘প্রিয়া সাহা সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন, দেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ছাড়া বাকি ধর্মের মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে খুন-ধর্ষণের ঘটনা ঘটে, সেখানে মুসলিমরাও আক্রান্ত হয়। এটাকে আমরা সামাজিক অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করি। আমি মনে করি, প্রিয়া সাহা যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় লাভের জন্য এটা করেননি। তার বড় ধরনের এজেন্ডা রয়েছে।’

প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগে দেশের ওপর সুদূরপ্রসারী কোনো প্রভাব পড়তে পারে কি-না, এমন প্রশ্নে রিপন বলেন, ‘ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় মার্কিন প্রশাসন নিয়ে যে আশঙ্কা করেছেন আমি তার সঙ্গে একমত।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে প্রিয়া সাহার অভিযোগকে ‘ভয়ঙ্কর মিথ্যা’ উল্লেখ করে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘বিষয়টি থেকে মার্কিন দূতাবাসের দূরভিসন্ধি প্রকাশ পায়। মার্কিন দূতাবাস জেনেশুনেই প্রিয়া সাহাকে বাছাই করেছে।’

‘আর এ কাজের পেছনে মানবিকতার দোহাই দিয়ে এ অঞ্চলে সেনা অভিযানের ক্ষেত্র প্রস্তুত করা’-কে কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন জয়।

ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগ প্রসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া বলেন, ‘আমার মনে হয় প্রিয়া সাহা ব্যক্তিগতভাবে আক্রান্ত হয়ে ক্ষোভের সঙ্গে এসব বলেছেন। কিন্তু ব্যক্তিগত বিষয়টা যদি ঢালাওভাবে বলা হয়, সেটা আমি সমর্থন করি না।’

‘আমাদের দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আবহমান কালের। এটা আজকের নয়। এখানে আমরা সবাই সবার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এখানে হয়তো অনেক সময় ছোট ছোট জিনিস ঘটে। এটা নিয়ে অভিযোগের (প্রিয়া সাহার অভিযোগ) যে ধরন- এটা ঠিক নয়। আমি এটা কখনও মানব না।’

সুকোমল বড়ুয়া আরও বলেন, ‘আমাদের এখানে ছোটখাটো যেসব ঘটনা ঘটে, সেখানে কিছু সুবিধাবাদী রয়েছে, যা হিন্দুদের মধ্যেও রয়েছে। একটা সংখ্যা দিয়ে যেটা প্রিয়া সাহা বললেন, এটা কেন করলেন… বুঝি না। আমার মধ্যেও এটা নিয়ে প্রশ্ন জাগে, এটা ঠিক নয়। একটা দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করা, দেশের ভাবমূর্তি প্রশ্নবিদ্ধ করা- এটাকে আমি কখনও সমর্থন জানাই না। এটা বলা ঠিক হয়নি। কারা করছে, এসব ঘটনা ভারতেও হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি শান্তিবাদী, মানবতাবাদী মানুষ; সম্প্রীতি নষ্ট হোক, সেটা সমর্থন করি না।’

প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগ বাংলাদেশের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে কি-না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের ওপর অবশ্যই প্রভাব পড়বে। এটা বিশ্ববাসীকে আক্রান্ত করবে।’

প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগ ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতা’ বলে মন্তব্য করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!