নুনিয়াছড়া থেকেই শুরু হচ্ছে পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান

'ইয়াবার টাকায় বানানো দালানের পাশে সাড়ে তিনহাত জায়গাও রাখুন'

প্রধান প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার শহরের ২নং ওয়ার্ডের উত্তর নুনিয়াছড়ায় ‘মাদক, ইভটিজিং ও নারী সহিংসতাসহ অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং’ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ আদিবুল ইসলাম।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নুনিয়াছড়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে চিরুনী অভিযান চালানো হবে। কোন ধরণের মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড় দেয়া হবে না।

এই ২নং ওয়ার্ড থেকেই চিরুনী অভিযান শুরু হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কক্সবাজার শহরের প্রত্যেক ওয়ার্ডে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হবে।

শনিবার (২০ জুলাই) উত্তর নুনিয়াছড়া শিল্প এলাকায় ২নং ওয়ার্ড কমিউিনিটি পুলিশিং কমিটির সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওই সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আদিবুল ইসলাম আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ যখন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নিয়ে বিশ্বের দরবারে এগিয়ে যাচ্ছে, পদ্মা সেতুর কাজ যখন আমরা শেষ করতে যাচ্ছি- তখনও উত্তর নুনিয়াছড়ার লোকজন ইয়াবা নিয়ে পড়ে আছে। যারা ইয়াবার টাকায় আরামের দালান বানাচ্ছেন তার পাশে সাড়ে তিনহাত জায়গা রাখবেন।

তিনি বলেন, মাদকের ব্যাপারে কাউকে বিন্দু পরিমাণ ছাড় দেয়া হবে না।

মাদকের শাস্তি মৃত্যুদন্ড জানিয়ে তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায়ী নির্মূল ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের পাকড়াও করতে অভিযানের সূচনা হলো উত্তর নুনিয়াছড়া থেকেই। কক্সবাজারের আনাচে-কানাচে এই অভিযান পরিচালিত হবে।

মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারী দিয়ে তিনি বলেন, কোটি টাকা আয় করবেন, অথচ রাতযাপন করতে হবে পাহাড়ে-জঙ্গলে! কেন এই টাকা? মাদক বিক্রি করে বাড়ি বানাচ্ছেন, গাড়ি কিনছেন- কার জন্য? আপনি মরে গেলে আপনার সন্তান-স্ত্রী লাশও নিবে না। সুতরাং সময় থাকতে এসব ছেড়ে সুন্দর জীবনে ফিরে আসুন। আপনার অপর সহযোগীকেও সতর্ক করুন। অন্যথায় আইনের হাত থেকে কোন ব্যবসায়ীর রক্ষা হবে না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে উত্তর নুনিয়াছড়ায় মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হবে। এটি লোক দেখানো অভিযান হবে না। এমন অভিযান হবে যেখানে কোন মাদক ব্যবসায়ী ছাড় পাবে না।

এসময় তিনি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা ও তাদের ঘরবাড়ি সনাক্ত করিয়ে পুলিশকে সহযোগিতার এলাকাবাসীকে আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, মাদক ব্যবসায়ীরা সৎপথে ফিরে না আসলে কঠোর শাস্তি ভোগ করতে হবে। যারা স্কুল-কলেজের সামনে দাঁড়িয়ে ইভটিজিং করে, ভাল হয়ে যাও। অন্যথায় এই অপরাধের দায়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, দুই/চারজন ইয়াবা ব্যবসায়ীর কারণে পুরো এলাকার বদনাম হতে দেয়া যাবে না। একজন খুনি কিন্তু একটা খুনের জন্য দায়ী। কিন্তু একজন ইয়াবা ব্যবসায়ী শত শত মানুষকে প্রতিনিয়ত খুন করছে। এদের আর ছাড় দেয়া হবে না।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মেহেদী রহমান, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি মিজানুর রহমান, কক্সবাজার পৌর কাউন্সিলর (প্যানেল মেয়র-৩) শাহেনা আকতার পাখি ও ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিজানুর রহমান।

জেলা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মঈন উদ্দিন, শিল্প এলাকা সমাজ উন্নয়ন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আনছারুল করিম, কমিউনিটি পুলিশিং ২নং সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন, ডিসকভার কক্স’র পরিচালক সাংবাদিক আবদুল্লাহ নয়ন, কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং) মোহাম্মদ ইয়াসিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিব, ২নং ওয়ার্ডের কমিটিনিটি পুলিশিং কমিটির এসএম হেলাল উদ্দিন, আনোয়ারুল করিম, মো: ফারুক, কাইসার, মুবিন, মো: মোক্তার, রাশেদ, আজিজুল হক আজিজ, নাজিম উদ্দিন।

সভায় সমাপনী বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি পুলিশিং ২নং ওয়ার্ডের সভাপতি সেলিম উল্লাহ সেলিম।

সভা সঞ্চালনা করেন কমিউনিটি পুলিশ ২নং ওয়ার্ডের সম্পাদক আজিমুল হক আজিম ও সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম হেলাল উদ্দিন।

সভায় উত্তর নুনিয়াছড়া, মধ্যম নুনিয়াছড়া, পশ্চিম নতুন বাহারছড়াসহ বিভিন্ন এলাকার নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।