কক্সবাজার শহর যেন এক নদী কিংবা নালা!

কক্সবাজার শহর যেন এক নদী কিংবা নালা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কয়েকদিনের টানা বর্ষণে কক্সবাজার শহর ও শহরতলীর প্রধান সড়ক ও উপ-সড়ক গুলোর বেহালদশা দেখা দিয়েছে। সাধারণ মানুষ প্রতিনিয়ত দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। পৌর শহরের প্রধান সড়ক ছাড়াও পুরো পৌরসভার অলিগলিতে খানাখন্দকের সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মত ও সরেজমিনে দেখা যায়, কক্সবাজার শহরে অল্প বৃষ্টিতেই একদিকে হাঁটু পরিমাণ পানি জমে যাচ্ছে, অন্যদিকে নালা-নর্দমার ময়লা-আবর্জনা সড়কের উপরে এসে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করছে।

এদিকে শহরের প্রধান সড়কের চরম দূর্ভোগে অতিষ্ট হয়ে মানুষ কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সমালোচনা ও নানামুখী লেখনির ঝড় তুলেছেন।

স্থানীয় অধিবাসীদের মতে, কক্সবাজার শহরের এমন অবস্থা দাঁড়িয়েছে যে, কোন কোন সড়ক দিয়ে চলাচল একেবারেই অনুপোযোগী উঠেছে। এসব সড়ক ও উপ-সড়কে প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন হাসপাতালে আসা রোগি, রোগির স্বজনসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা হাজার হাজার মানুষ। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও সাধারণ ব্যবসায়ীরা।

কক্সবাজার শহর যেন এক নদী কিংবা নালা!

প্রত্যক্ষদর্শী সাধারণের মতে, প্রতিদিন এসব সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলছে সব ধরণের যানবাহন। এ সড়কে নিত্যদিন যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। রাস্তার বেহালদশা ও ভোগান্তির যন্ত্রণায় ইদানিং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চলছে ক্ষোভের অনুভূতিভরা ওয়াল।

সরেজমিনে দেখা যায়, কক্সবাজার শহর ও শহরতলীর প্রায় অলিগলির সড়কগুলোই এখন খানা-খন্দকে ভরপুুর। বিশেষ করে লিংক রোড, বাস টার্মিনাল, আলির জাহাঁল প্রধান সড়ক, রুমালিয়ারছড়ার টেকনিক্যাল স্কুলের সামনে প্রধান সড়ক, গোদার পাড়ার বিভিন্ন অলিগলি, চৌধুরী ভবনের সামনে প্রধান সড়ক, দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এবিসি ঘোনার অলিগলি, আশুঘোনা এলাকা, পাহাড়তলীর অলিগলি, বাজার ঘাটায় বাঁচা মিয়ার ঘোনা, কলাতলীর বিভিন্ন অলিগলিসহ প্রায় সড়ক ও উপ-সড়কেই ছোট ছোট গর্ত ও খানাখন্দকে ভরপুর হয়ে পড়েছে। কোন কোন সড়কে শুধু পিচই নয়, খোয়াও উঠে গেছে। শুধু যানবাহন নয়, পথচারীদের চলাচলেও অসুবিধা হচ্ছে। প্রায় একই অবস্থা দেখা গেছে পুরো পৌর এলাকাজুড়েই।

সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা বলেন, পৌর এলাকার প্রধান সড়ক কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তারপরও সড়কের সংস্কার কাজে বিভিন্ন উপায়ে সহযোগিতা করে আসছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ।